Header Ads

সিভিক ভলেন্টিয়ারদের কাজ কর্মে অনেক প্রশ্নচিহ্ন থাকলেও আজকের দুটি ঘটনা আপনার মন পাল্টাবেই।

নজরবন্দি,দাসপুর:দাসপুর এলাকার মানুষ সেভিকের কাজ কর্মে প্রশ্ন তুললেও আজকের দুটি ঘটনা দাসপুর থানার অধীন সিভিক ভলেন্টিয়ারদের মনোবল বৃদ্ধি করবে। এলাকার মানুষ এবার একটু হলেও অন্যভাবে দেখবেন তাঁদের। দাসপুর থানার রাজনগর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার হরিরামপুরের এক সমবায় সমিতিতে বড়সড় চুরি হতে পারত গত রাতে।
ওই রাতে মূলত ডিউটিতে থাকা সিভিকদের তৎপরতাতেই সমিতির চুরি ঠেকানো গেছে। রাত ১টা নাগাদ হঠাৎ কিছু অস্বাভাবিক শব্দ পেয়ে হরিরামপুরে ডিউটিতে থাকা সিভিকরা তৎপরে হয়ে তার খোঁজচালাতে গিয়ে দেখে হরিরামপুর সমিতি আলো নেভানো। হুইসেল বাজিয়ে তারা সমিতির দিকে ছুটতে থাকলে সমিতির মধ্যথেকে কয়েকজন দুষ্কৃতি দ্রুতবেগে বেরিয়ে যায়। সমিতির মধ্যে গিয়ে দেখাযায় ততক্ষণে তারা মেইন গেটের তালা ভেঙে ফেলেছিল সাথে বিদ্যুতের সংযোগও বিচ্ছিন্ন করেদিয়েছিল। সমিতির পক্ষে এসে অনুসন্ধান করলে জানাযায় তাদের সব কিছুই আছে,কিছুই নিয়েযেতে পারেনি দুষ্কৃতিরা। এই ঘটনায় দাসপুর থানার সিভিকদের প্রশংসা করছেন এলাকার মানুষ। অপর একটি মানবিক ঘটনা ঘটালো দাসপুর থানারই এক সিভিক তার নাম সন্দীপ বেরা বাড়ি দাসপুর-২ ব্লকের খেপুত গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। এই সন্দীপের দৌলতেই আজ এক বাড়ি হারানো মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তি তাঁর বাড়ি পরিবার ফিরেপেলেন।
প্রায় এক মাস ধরে এক অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন গোপীগঞ্জ বাজার এলাকায়। বাজারের ফেলেদেওয়া এঁটোকাটা খেয়েই তার দিন চলছিল। ওই সেভিক একদিন পাগল লোকটির সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে বুঝেযান ওই ব্যক্তি আসলে খুব একটা পাগল নয়,তার বাড়ি ফেরার ইচ্ছা আছে কিন্তু বাড়ি যেতে পারছে না। এমন অবস্থায় ওই তিনি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে ওই ব্যক্তির ছবি দিয়ে তাঁর নাম্বার দিয়েদেন। পরে সে ছবি শেয়ার হতে হতে পৌঁছে যায় ওই ব্যক্তির পরিবারের কাছে। পরিবার থেকে সন্দীপ বাবুর সাথে যোগাযোগ করা হয়। জানাযায় ওই স্মৃতিভ্রষ্ট মানুষটির নাম সোমনাথ মান্না বাড়ি ডোমজুড় থানার মাকড়দহে। আজ দুপুরে সোমনাথ মান্নার পরিবারের লোকজন এসে তাঁকে নিয়েগেছেন।
দাসপুর থানার সেভিক ভলেন্টিয়ারদের নানা সময়ে নানা কারণে অপদস্থ হতে হয়। কিন্তু আমারা ভুলেযাই সেভিকরা আসলে নিরস্ত্র স্বেচ্ছাসেবক মাত্র। তাদেরকে গ্রামে গ্রামে রাত পাহারায় লাগানো হয়। কিন্তু একবার ওই সেভিক বন্ধুর জায়াগায় নিজেকে বসিয়ে যদি বিচার করি তাহলেই পরিস্থিতি পরিষ্কার হবে। নিরস্ত্রভাবে খালি হাতে আমরা হলে কি পারতাম গভীর রাতে অচেনা,অজানা দুষ্কৃতিদের সাথে মোকাবিলা করতে?

No comments

Theme images by sndr. Powered by Blogger.