মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ,শিক্ষিত বেকারদের নামমাত্র অর্থ দিয়ে বেগার খাটানো'র পরিকল্পনার অভিযোগ!

নজরবন্দি ব্যুরোঃ স্কুলগুলিতে শিক্ষক সমস্যা মেটাতে শিক্ষানবিশ শিক্ষক নিয়োগের কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপর থেকেই এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় সমালোচনার ঝড় উঠেছে। দাবি করা হয়েছে, এভাবে একদিকে যেমন প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত শিক্ষক পদপ্রার্থীরা বঞ্চিত হবেন তেমনই শিক্ষাব্যবস্থার অবনতি ঘটবে।


এবার ইন্টার্ন শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় মুখ খুললেন মাধ্যমিক শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী সমিতির সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ মিত্র৷ মুখ্যমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে তিনি বলেন, "মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে বিদ্যালয়ে ইন্টার্নশিপ চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তা এককথায় অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। আমরা মনে করি যে বিদ্যালয় গুলিতে হাজার হাজার শিক্ষক পদ শূন্য থাকায় শিক্ষার্থীরা বঞ্চিত হচ্ছে সেখানে সরকার শিক্ষক নিয়োগ না করে শিক্ষিত বেকারদের নামমাত্র অর্থ দিয়ে খাটিয়ে নেওয়ার একটা পরিকল্পনা করেছে। এর মাধ্যমে শিক্ষার উন্নতি তো হবেই না, উপরন্তু পশ্চিমবঙ্গের স্কুলশিক্ষা যেভানে ধসে গেছে তা আরও দ্রুত রসাতলের দিকে যাবে।"

বিশ্বজিৎ বাবু দাবি করেন, পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষার ক্ষেত্রে এই ধরণের ব্যবস্থা চালু হলে অদূর  ভবিষ্যত্র সরকার থেকেই তখন বলা হবে যে বিদ্যালয় গুলিতে শিক্ষক নিয়োগ করার কোনো প্রয়োজন থাকছে না। শুধু তাই নয়, বিদ্যালয়ে যে ইন্টার্ন পাঠানো তাদের কোনো দায়বদ্ধতা থাকবে না। সরকারি স্কুলের এই দুরবস্থায় অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের নিয়ে যাবেন বেসরকারি স্কুলে। তবে কি বেসরকারিকরণকেই ইন্ধন যোগাত্র চাইছে সরকার? এমন প্রশ্নও উঠতে শুরু করে দিয়েছে। এর বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলার ডাক দিয়েছেন মাধ্যমিক শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী সমিতির সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ মিত্র।
DESCRIPTION OF IMAGE

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.