কেন্দ্রে সরকার বদল হলে নতুন নীতি তৈরি হবে। বিশ্ব বাংলা বাণিজ্য সম্মেলনের মঞ্চে থেকে বললেন মমতা।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ দেশে যেখানে ২ কোটি মানুষ চাকরি হারিয়েছেন, বেকারত্বের সংখ্যা বেড়েছে, সেখানে পশ্চিমবঙ্গে বেকারত্ব কমেছে ৪০ শতাংশ।
বিশ্ব বাংলা বাণিজ্য সম্মেলনের মঞ্চে দাঁড়িয়ে ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবছর চতুর্থ বর্ষে পা দিল বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিট। ২০১৯ সালের শিল্প সম্মেলনের শুভ সূচনা করে মুখ্যমন্ত্রী জানান, গত ৪টি শিল্প সম্মেলনে ১০ লাখ কোটি টাকা লগ্নির প্রস্তাব এসেছে। তারমধ্যে পঞ্চাশ শতাংশ লগ্নি প্রস্তাব বাস্তবায়নের কাজ চলছে বলেও শিল্প সম্মেলনে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।রাজ্যের শাসন ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন চালু করেন মমতা।
এই সম্মেলনের উদ্দেশ্যই ছিল বাংলায় শিল্প বিনিয়োগের মাত্রার বৃদ্ধি করা এবং বাংলাতে শিল্পের ডেস্টিনেশন হিসাবে তুলে ধরা। শুরুর দিকে এই শিল্প সম্মেলন নিয়ে সেভাবে সাড়া না পেলেও গত কয়েক বছরে বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনের হরে-দরে অনেকটাই প্রসার হয়েছে। কিন্তু, বাংলার শিল্প মানচিত্রে কতটা বিনিয়োগের বৃদ্ধি হয়েছে তা নিয়ে বিতর্কও রয়েছে। এবার লোকসভা নির্বাচনের আগে এই বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন বাংলার জন্য কোনও বড় কোনও বিনিয়োগের বার্তা আনতে পারে কি না সেদিকেই এখন নজর সকলের।বিনিয়োগের প্রসঙ্গে এদিন শিল্প সম্মেলনের মঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী ফের একহাত নেন কেন্দ্রের মোদী সরকারকে।

 মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কেন্দ্রে সরকার বদল হলে নতুন নীতি তৈরি হবে। শিল্পপতিদের তখন আর কোনও সমস্যা থাকবে না। এদিন শিল্প সম্মেলনের মঞ্চ থেকে আগামী দিনে রাজ্যে আরও ১০ হাজার কোটি টাকা লগ্নির ঘোষণা করেন শিল্পপতি মুকেশ আম্বানি। তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে গড়ে উঠছে শ্রেষ্ঠ বাংলা। আরপিজি-র কর্ণধার সঞ্জীব গোয়েঙ্কা বলেন, এরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দেশের এক নম্বর মুখ্যমন্ত্রী। গত কয়েক বছরে আরপিজি রাজ্যে ২৩ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে বলেছে জানান সঞ্জীব গোয়েঙ্কা।
DESCRIPTION OF IMAGE
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.