নজরবন্দি-র খবরের জের চিটফান্ড প্রতারিতদের ধর্না মঞ্চে পৌঁছে গেলেন কৈলাস, দিলেন আশ্বাস!!

নজরবন্দি ব্যুরোঃ একজন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী-র হটাৎ ধর্ণা কেন? সাংবিধানিক সঙ্কট বাঁচাতে? না রাজ্যের একজন ভারপ্রাপ্ত আধিকারিকের প্রতি অবিচারের প্রতি সুবিচারের আশায়? যাই হোক নইতিক জয়ের দাবী নিয়ে ধর্না উঠে গেছে।
কিন্তু প্রশ্ন পিছু ছাড়েনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর। প্রশ্ন ওঠে চিটফান্ডে টাকা রেখে সর্বস্বান্ত হয়েছেন রাজ্যের অসংখ্য মানুষ। এরকমই প্রতারিত আমানত কারীরা সুবিচারের আশায় ধর্নায় বসেছেন। অথচ সেদিকে ভ্রুক্ষেপ নেই সরকারের। রোজভ্যালিতে টাকা রেখে নিজেদের সঞ্চিত সর্বস্ব হারিয়েছেন বহু আমানত কারী। টাকা ফেরত পাওয়া এবং সুবিচারের দাবিতে দীর্ঘ ৯৩ দিন ধরে ধর্নায় বসে রয়েছেন আমানত সর্বস্বান্ত কারীরা।
গত ১২ নভেম্বর ২০১৮ থেকে কলকাতার মিন্টু পার্কে পার্ক প্রাইম হোটেলের সামনে ফুটপাথে চলছে ধর্না। অথচ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী একবারের জন্যেও দেখা করেননি তাদের সাথে। এই ঘটনাকে গণতন্ত্রের অপমান বলে দাবি করেছেন সিপিআইএম ও কংগ্রেস নেতৃত্ব। রাজ্য বাজেটের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শনের সময় এই ধর্নার বিষয়টি তুলে ধরে সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিল বাম-কংগ্রেস নেতৃত্ব। মমতা বন্দপাধ্যায়ের ধর্না চলাকালীন এই খবর সর্বপ্রথম নজরে আনে নজরবন্দি। খবরটি বিপুল পরিমান শেয়ার হয়(৩২১০ টি)।(সর্বস্বান্ত আমানত কারীদের ধর্না ৮৭ দিনে পড়লো, কোথায় মুখ্যমন্ত্রীর মমতা?) খবর পৌঁছায় রাজ্যের অন্যতম বিরোধী দল বিজেপি-র কাছেও। শনিবার মিন্টো পার্কের পার্ক প্রাইম হোটেলের বাইরে রোজভ্যালির অনশনরত আমানতকারীদের সঙ্গে দেখা করেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। প্রতারিতদের কৈলাস আশ্বাস দেন বিজেপি তাদের পাশে রয়েছে। সর্বস্য হারানো আমানতকারীদের রাজ্যপাল এবং ইডি আধিকারিকদের সাথে দেখা করানোর আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।
DESCRIPTION OF IMAGE

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.