দক্ষিন কলকাতার প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধি ৩৬৫ কোটি পেলেন কোথা থেকে? শুরু তদন্ত।

নজরবন্দি ব্যুরো: বহু দিন ধরে তৃণমূলের একাধিক নেতা-মন্ত্রীর বিরুদ্ধে হিসাব বহির্ভূত সম্পত্তির অভিযোগ করে আসছে সিপিআই(এম)। কিছুদিন আগে সরাসরি তৃণমূলের প্রথম সারির ২৫ জন নেতার বিরুদ্ধে হিসাব বহির্ভূত সম্পত্তির অভিযোগ সহ 'প্রমান' নিয়ে  সিপিআই(এম) নেতা সুজন চক্রবর্তীর নেতৃত্বে বাম প্রতিনিধি দল আয়কর  ও ইডি দফতরে অভিযোগ জানিয়ে আসেন। সুজন বলেছিলেন “এই রাজ্যকে বে-আইনি সম্পত্তির কারখানা বানিয়ে তুলছেন তৃণমূল নেতারা।" তাঁর কটাক্ষ, “বেআইনি সম্পদ নিয়ে মন্ত্রী, এমএলএ হওয়া? তুর্কি নাচন নাচাব।”

আর এবার ধরপাকড়ের তৎপরতা শুরু হল আয়কর দফতরের। আইন মেনে হিসেব বহির্ভূত আয়ের তথ্য ঘোষণা করে জানানো নির্দেশ দিয়েছিল কেন্দ্রীয় অর্থ দফতর, সেই ঘোষণা মতই এক ব্যাক্তি ৩৬৫ কোটি টাকার হিসেব ব্যাঙ্কের মাধ্যমে জমা করেছিলেন আয়কর দফতরে।
নির্দিষ্ট ব্যাক্তি দক্ষিন কলকাতার একটি ব্যাঙ্কে টাকা জমা করেন। তিনি যথেষ্ট প্রভাবশালী এবং জনপ্রতিনিধি বলেও খবর আয়কর দফতর সূত্রে! উল্লেখ্য বিষয় একটি সংস্থার নাম করে এই বিপুল পরিমান টাকা তোলা হয়েছিল। তদন্তে নেমেছে আয়কর দফতর। 
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.