বেতন বাড়লেও সমস্যা মিটল না, বঞ্চিত প্রায় ৭০ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক! আবার আন্দোলন?

নজরবন্দি ব্যুরোঃ ১৩ দিন অনশন আর ১৪ দিন ধর্নার ফল মিলেছে দুদিন আগেই, যোগ্যতা অনুযায়ী বেতনের দাবি না পূরণ হলেও বেড়েছে গ্রেড পে। অনশন প্রত্যাহার করেছে অরাজনৈতিক শিক্ষক সংগঠন উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারী টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোশিয়েশন। যোগ্যতা অনুযায়ী বেতনের দাবীতে অনশন পাশাপাশি অনৈতিক ভাবে ট্রান্সফার করে দেওয়া ১৪ জন শিক্ষককে পুনরায় নিজের নিজের জেলায় ফিরিয়ে আনার দাবীতে অনশন চলছিল। ৩দিন আগে দলীয় শিক্ষক সংগঠনের সভায় বক্তব্য রাখেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।
যদিও সেখানে তিনি ডাকেননি অনশনকারী শিক্ষক সংগঠনকে। সেই সভা থেবে বেতন কাঠামো সংশোধনের কথা জানিয়েছিলেন তিনি। সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে পরের দিনই বেতন বৃদ্ধির নির্দেশিকা জারি করে শিক্ষা দফতর। পে ব্যান্ড ৩ তে এখন থেকে ট্রেন্ড টিচার দের মাইনে হবে। প্রথম যিনি চাকরি পাবেন তার প্রথম মাসের বেতন হবে আগষ্ট মাস থেকে ২৬৭৯৬ টাকা। বেতন বেড়েছে ৫২৮০ টাকা। পুরনো স্কেল অনুযায়ীঃ ৬২৪০+গ্রেড পে ২৬০০ = বেসিক পে ৮৮৪০ + ১৪০%(D.A+H.R.A) = ১২৩৭৬ + ৩০০ (M.A) = ২১৫১৬(Gross)। নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী বেতন হবে, ৭৪৪০ + গ্রেড পে ৩৬০০ = ১১০৪০(basic) +১৪০% (D.A+H.R.A) = ১৫৪৫৬ + ৩০০(M.A)= ২৬৭৯৬ টাকা(Gross)। অর্থাৎ বেতন বাড়লঃ ২৬৭৯৬-২১৫১৬ = ৫২৮০ টাকা। পিআরটি স্কেল না পেলেও, আপাতত এই ঘোষনায় খুশি শিক্ষক মহল।
কিন্তু সমস্যায় পড়েছেন প্রায় ৭০ হাজার শিক্ষক।এই ৭০ হাজার শিক্ষক হলেন 'অপ্রশিক্ষিত' অর্থাৎ ২০১৪ - ২০১৭ সালে NIOS থেকে D.EL.ED করা প্রাথমিক শিক্ষক। তাঁদের অভিযোগ সরকারের উদাসিনতার কারনে তাঁরা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষকের তকমা পাননি। যে কারনে তাঁরা পে ব্যান্ড ৩ এ বেতন পাবেন না! শিক্ষাদফতরের নির্দেশিকা অনুযায়ী প্রশিক্ষিতদের গ্রেড-পে যেখানে পে ব্যান্ড ২ এর ২৬০০ টাকা থেকে পে ব্যান্ড ৩ এর ৩৬০০ টাকা করা হচ্ছে সেখানে অপ্রশিক্ষিত শিক্ষকদের গ্রেড-পে ২৩০০টাকা থেকে ২৯০০টাকা করা হচ্ছে আর পে ব্যান্ড থেকে যাচ্ছে সেই ২ এই।
সরকারকে কাঠগড়ায় তুলে আবার শিক্ষক আন্দোলনের হাতছানি রাজ্যে!
DESCRIPTION OF IMAGE
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.