রোহিতের সাথে মতবিরোধ বিরাটের! কেন জানেন? বেরিয়ে এলো আসল সত্য।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ অশান্তির চোরা স্রোত ছিল কিন্তু তা এতদিন বোঝা যায়নি। বিশ্বকাপে বিপর্যয়ের পর তা প্রকাশ্যে এলো, এই মুহূর্তে ভারতীও দলে দুটো শিবির। একটি বিরাট ও শাস্ত্রীর আর অন্যটি রোহিত শর্মার। এক প্রথম সারির হিন্দি সংবাদ পত্রের কথা অনুযায়ী দলের সমস্থ সিদ্ধান্ত নেন শাস্ত্রী ও বিরাট যেখানে সহ অধিনায়কের মতামত নেবার কোন প্রয়োজন মনে করেন না অধিনায়ক ও কোচ। যা নিয়ে চটে আছেন রোহিত। যার সবচেয়ে বড় উদাহরণ বিশ্বকাপের দল নির্বাচনের সময় দেখা গেছে। যেখানে চার নম্বরে অম্বাতি রায়ডুর জায়গায় বিজয় শঙ্করকে নেওয়া হয়েছিল।
 সবচেয়ে বড় কথা কোহলি সমর্থন পেয়ে যাচ্ছেন সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স এর প্রধান বিনোদ রাইয়ের। সেকারণেই নাকি কুম্বলেকে সরানো সহজ হয়ে গিয়েছিল কোহলির পক্ষে। এটা ঘটনা কোহলির সঙ্গে মতের মিল না হওয়াতেই কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ান কুম্বলে। দলের ভেতরের খবর অধিনায়ক ও সহ অধিনায়কের মধ্যে বনিবনা নেই। গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে দীর্ণ টিম ইন্ডিয়া। রোহিতের গোষ্ঠীর লোকেরা মনে করছেন কোচ ও অধিনায়ক মর্জিমতো সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। যেমন অম্বাতি রায়াডুর জায়গায় বাছা হয়েছিল বিজয় শঙ্করকে।
 সূত্রের খবর আরও যে কোচ রবি শাস্ত্রী ও বোলিং কোচ ভরত অরুণকে নিয়ে নাকি খুশি নন অধিকাংশ ক্রিকেটার। ২০১৭ সালে অনিল কুম্বলে যাওয়ার পর কোচ হয়েছিলেন শাস্ত্রী। দলে এমনটা একটা পরিস্থিতি তৈরি করে রেখেছেন কোচ ও অধিনায়ক যে তাঁদের বিরুদ্ধে কেউ টুঁ শব্দ করতে পারছেন না। সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করলেই স্থান হারাবার ভয় পাচ্ছেন ক্রিকেটাররা। সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত প্রশাসক কমিটির প্রধান বিনোদ রাইয়ের সমর্থনও পাচ্ছেন বিরাট কোহলি। ক্রিকেটারদের একাংশ মনে করছে কোচ ও অধিনায়কের প্রিয়পাত্র হলেই ঠাঁই মিলবে দলে। আর সেটাই মানতে পারছেন না সহ-অধিনায়ক রোহিত শর্মা।
DESCRIPTION OF IMAGE
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.