Header Ads

শিক্ষক নেতা মইদুল ইসলামের জামিন বিতর্ক! কাঠগড়ায় খোদ 'দলদাস' বিচারক।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ বেতন বৃদ্ধি সহ বিভিন্ন দাবিতে শিক্ষাবন্ধু যৌথ মঞ্চের পক্ষ থেকে গতকাল বিকাশভবন অভিযান করা হয়। করুণাময়ী থেকে মিছিল করে শিক্ষাবন্ধুরা বিকাশভবন অভিমুখে গেলে পুলিশ তাদের মিছিলের উপর জলকামান চালায় এবং জোর করে তাদের গ্রেফতার করে। উল্টোডাঙা থেকে যেসমস্ত বিক্ষোভকারীরা অটো চেপে বিকাশভবন অভিমুখে আসছিলেন, পুলিশ তাদেরও অটো আটকে জোর করে গ্রেফতার করে। ২০০ জনের উপর শিক্ষাবন্ধুকে পুলিশ গ্রেফতার করে।
এই ২০০ জনের মধ্যে ছিলেন শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চের সম্পাদক মইদুল ইসলামও। সমস্ত শিক্ষাবন্ধুকে জামিনে মুক্তিদেওয়া হলেও। মুক্তি দেওয়া হয়নি মইদুল ইসলাম কে বলে জানা গেছে।
আজ ডায়মন্ড হারবার স্পেশাল কোর্টে মইদুল ইসলামের শুনানি হয়। মইদুলের পক্ষে আজ আইনজীবী ছিলেন বিশিষ্ট আইনজীবী সুব্রত মুখার্জি। কিন্তু সওয়াল জবাব শুরু হবার সময়েই বিচারক মইদুল ইসলামের জামিন খারিজ করে দেন সম্পূর্ণ অগণতান্ত্রিক ভাবে, এবং চারদিনের পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন বলে অভিযোগ করেছেন ঐক্য মঞ্চের প্রতিনিধিরা। শিক্ষকদের অভিযোগ বিচারক কিছু শোনার আগেই জামিন খারিজ করার প্রেক্ষিতে আইনজীবী সুব্রত মুখোপাধ্যায় চরম সওয়াল করেন কিন্তু জজ কোনও উত্তর না দিয়ে সবার চোখের সামনে চেয়ার থেকে উঠে চলে যান!
এই ঘটনায় শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ ধিক্কার জানিয়েছে প্রশাসন কে। তাঁদের অভিযোগ "আজ আবার প্রমাণিত হল যে রাজ্যের প্রশাসন এখন দলদাসে পরিণত হয়েছে এবং আইন ব্যবস্থা সরকারের অঙ্গুলিহেলনে চলছে। পশ্চিমবঙ্গের গণতন্ত্র আজ ধ্বংস। আগামী বুধবার আবার মইদুল ইসলামের কেসের শুনানি হবে ডায়মন্ড হারবার কোর্টে। আমরা শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চের তরফ থেকে কথা দিচ্ছি যে ওই দিন যদি মইদুল ইসলামের উপর নতুন করে কোনও মিথ্যা আরোপ চাপান হয় বা জামিন না দেওয়ায় হয় তাহলে পশ্চিমবঙ্গের বুকে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার উদ্দেশ্যও আমরা পথে নামব। পুলিশ ও সরকার তুমি হুঁশিয়ার হও।"
Loading...

No comments

Powered by Blogger.