TGT স্কেলে বেতন; হাইকোর্টের রায় কার্যকর করাতে ১৯শে মহা-সমাবেশ শিক্ষকদের।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ রবিবার বহরমপুর গোরাবাজার আইসিআই স্কুলে বৃহত্তর গ্র্যাজুয়েট টিচার্স এ্যাসোসিয়েশন(বিজিটিএ) এর মুর্শিদাবাদ জেলা শাখার আয়োজনে একটি সভা অনুষ্ঠিত হল।রাজ্যের গ্র্যাজুয়েট শিক্ষকদের 'টিজিটি পে' স্কেলের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে  আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে এই সংগঠন। এদিকে গত ২২শে জুলাই মহামান্য হাইকোর্টের বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্য  টিজিটি পে স্কেলের পক্ষে  রায় দিয়েছেন।
এই রায়কে কার্যকর করার জন্য আগামী ১৯শে আগস্ট 'কলকাতা চলো' ডাক দেওয়া হয়েছে সংগঠনের পক্ষে।এই মহাসমাবেশের রূপরেখা তৈরিতেই অনুষ্ঠিত হয় আজকের সভা। সভায় বিভিন্ন বিদ্যালয় থেকে প্রায় পাঁচশো জন শিক্ষক/শিক্ষিকা সমবেত হয়েছিলেন। উপস্থিত ছিলেন বিজিটিএর রাজ্য ও জেলা নেতৃত্ব নীলাদ্রি শেখর সমাদ্দার,সাবির চাঁদ,সুদীপ সাহা,সাবির আলি,হাসানুজ্জামান,রাজীব হোসেন,অরিজিৎ,শুভাশীস সাহা প্রমুখ।সভাপতিত্ব করেন আইসিআই স্কুলের প্রধান শিক্ষক ড.জয়ন্ত দত্ত।
শিক্ষক তথা বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও লেখক সাবির চাঁদ জানালেন বলেন "রাজ্যের গ্র্যাজুয়েট ক্যাটেগরি শিক্ষকগণের কেন্দ্রের ষষ্ঠ পে কমিশন অনুযায়ী রাজ্যের রোপা'২০০৯(৫ম রাজ্য পে কমিশন) এ পে স্কেল হওয়া উচিত ছিল পে ব্যান্ড-৪ ও গ্রেড পে ৪৬০০টাকা;কিন্তু এটা না করে গ্র্যাজুয়েট ক্যাটেগরির শিক্ষকদের নাম দেওয়া হয়েছে 'পাস ক্যাটেগরি'(টিজিটি-র পরিবর্তে) ও 'পে স্কেল' করা হয়েছে পে ব্যান্ড-৩,গ্রেড পে-৪১০০ টাকা।
এই বেতন বৈষম্য ও বঞ্চনার বিরুদ্ধে আন্দোলনের উদ্দেশ্যে জুনিয়র হাই, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েট ক্যাটেগরির শিক্ষক/শিক্ষিকাদের নিয়ে গড়ে উঠেছে অরাজনৈতিক শিক্ষক সংগঠন বৃহত্তর গ্র্যাজুয়েট টিচার্স এ্যাসোসিয়েশন(বিজিটিএ)।ইতিমধ্যে মহামান্য উচ্চ ন্যায়ালয়ে একাধিক মামলায় আমরা জিতেছি।আদালতের সেই সমস্ত রায়কে দ্রুত কার্যকর করার দাবিতে আগামী ১৯শে আগস্ট কলকাতায় মহাসমাবেশ ও মহামিছিলের ডাক দেওয়া হয়েছে।টিজিটি পে স্কেলের জি.ও না বেরনো পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।"
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.