রাম জেটমালানির স্মৃতিচারন, পুস্পার্ঘ অর্পন করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ রাম জেটমালানির প্রতি পুস্পার্ঘ অর্পন করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। রবিবার সকাল পৌনে ৮টা নাগাদ নয়াদিল্লিতে তাঁর বাসভবনেই প্রয়াত হন প্রবীণ আইনজীবী তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জেটমালানি। বার্ধক্যজনীত অসুখে ভুগছিলেন রাম জেঠমালানি।
দেশের সবচেয়ে নামী উকিলদের মধ্যে একজন ছিলেন জেঠমালানি। তাঁর জন্ম হয় ১৯২৩ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর অধুনা পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশের শিখারপুর এলাকায়। আইনজীবী হিসেবে সুদীর্ঘ কেরিয়ারে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ মামলা লড়েছেন জেঠমালানি। জেলা জজের আদালত থেকে শুরু করে হাই কোর্ট এবং সুপ্রিম কোর্টে একাধিক আলোড়ন সৃষ্টিকারী মামলায় আইনজীবী ছিলেন জেঠমালানি। প্রথম বড় মামলা তিনি পান ১৯৫৯ সালে। মহারাষ্ট্র সরকারের বিরুদ্ধে কে এমকে নানাবতীর হয়ে মামলা লড়েন জেঠমালানি। সেই মামলা দীর্ঘদিন সংবাদের শিরোনামে ছিল।
কেরিয়ারের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মামলাগুলির মধ্যে রয়েছে, রাজীব গান্ধীর হত্যাকারীদের পক্ষে দাঁড়ানো। স্টক এক্সচেঞ্জ দুর্নীতিতে অভিযুক্ত হার্শদ মেহতা এবং কেতন পারেখের হয়ে মামলা লড়েন জেঠমালানি। আফজল গুরুর ফাঁসির সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেও লড়াই করেন।জেসিকা লাল হত্যা মামলাতেও আইনজীবী ছিলেন। আইনজীবী মহলে বিশেষ সমাদৃত জেঠমালানি ২০১০ সালে সুপ্রিম কোর্টের বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০১৭ সালের সেপ্টম্বরে আইনজীবী পেশায় অবসর নেন। দেশের হাই-প্রোফাইল মামলা মানেই তার দায়িত্ব এসে পড়ত রাম জেঠমালানির কাছেই। কর্মজীবনে বিতর্ক যেন সব সময়ের সঙ্গী ছিল। আদালতে গণ্ডি ছাড়িয়ে পা রেখেছিলেন রাজনীতির আঙিনাতেও। অটলবিহারী বাজপেয়ী জমানার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জেটমলানী রাজস্থান থেকে রাজ্যসভার সাংসদ হিসাবেও নির্বাচিত হন।
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.