উর্দু বনাম বাংলা লড়াই। ইতিহাসের পাতায় দার ভিটঃ ঘুরে দেখা বলিদান এর এক বছর

নজরবন্দি ব্যুরোঃ উল্লেখ্য, সেপ্টেম্বর মাসে স্কুলে ব্যাপক হিংসার জেরে নিহত হন দুই প্রাক্তন ছাত্র। আহত হন আরও বেশ কয়েকজন। উত্তর দিনাজপুরের মহকুমা শহর ইসলামপুর থেকে প্রায় সাত কিলোমিটার দূরে দাড়িভিট গ্রাম। সেখানকার কোএড উচ্চমাধ্যমিক স্কুলে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা সব মিলিয়ে প্রায় দু’হাজার।সেই স্কুলেই উর্দু এবং সংস্কৃত শিক্ষকের যোগ দেওয়া নিয়েই শুরু হয় গণ্ডগোল, স্কুল ভাঙচুর এবং শেষে গুলিতে রাজেশ সরকার ও তাপস বর্মণ নামে দুই প্রাক্তন ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যুতে তোলপাড় হয়ে ওঠে গোটা রাজ্য। আজ ২০ শে সেপ্টেম্বর।
 বাংলা_ভাষা_শহিদ রাজেশ তাপস বলিদান_দিবস। কী অপরাধ ছিলো ওদের? যার জন্যে নির্মম ভাবে হত্যা করা হলো দুটি সম্ভবনা কে ? চলুন ফিরে যায় সেই ঘটনার স্থান - দারিভিটি_হাই_স্কুল,, বাংলা শিক্ষকের স্থান খালি। কিন্তু একশ্রেনীর জাতীর পদলেহন করার জন্যে এবং সার্কুলার রাতের অন্ধকারে ক্ষমতা মদগর্বে পরিবর্তন করে পাঠানো হলো উর্দু_শিক্ষক। যে ভাষার কোন প্রয়োজনীয়তায় নেই সেখানে । তাহলে কার স্বার্থ কিসের জন্যে এই উর্দু শিক্ষকের প্রয়োজন পড়লো? এই সহজ সরল কথাটা সাদামাটা ভাবে জানতে চেয়েছিলো ওখানকার কিছু ছাত্র/ছাত্রীরা ।
কিন্তু পুলিশ শিক্ষকের পরামর্শে বিনা প্ররোচনায় নির্বিচারে গুলি করে কন্ঠরোধ করতে চেয়়েছিলো। ফল হিসাবে স্কুল প্রাঙ্গনের পবিত্র মাটি ছাত্রের রক্তে রন্জিত হয়েছিল সেদিন। আজ ও বিচার পাইনি সেই দিনের সেই দুই প্রতিবাদী ছাত্রের আত্মা। বিচারের বানী আজ ও নিরবে নিভৃতে কাঁদে। তাই আজ কের দিনে সেই দুই প্রতিবাদী ভাই এর শুধু আত্মা শান্তি নয় তাদের মৃত্যুর সুবিচার দাবি করছে সব মহল।
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.