কেষ্টপুরে বিস্ফোরণ; তদন্তে সামনে এল নয়া মোড়।

নজরবন্দি ব্যুরো: কেষ্টপুরের হানাপাড়ায় শুক্রবার রাতে একটি ফ্ল্যাট বাড়ি বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে। অগ্নিদগ্ধ গৃহকত্রী স্বাতী রায়(৪৮) ভর্তি করা হয় চিনার পার্কের এক বেসরকারি হাসপাতালে। পরে অবস্থার অবনতি হলে ওই অগ্নিদগ্ধ মহিলাকে ভর্তি করা হয় ই এম বাইপাসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। মহিলার অবস্থা আশঙ্কাজনক। এদিকে অগ্নিদগ্ধ মহিলার স্বামী কলকাতা পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের আধিকারিক দেবাশিস রায়ের স্ত্রী।
বাগুইআটি থানা এবং বিধাননগর সিটি পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমেছে। ঘটনার তদন্তে ফরেন্সিক টিম অগ্নিদগ্ধ মহিলা স্বাতী রায়ের বয়ান রেকর্ড করেছে। ওই ফ্ল্যাটের ঘটনাস্থল রান্নাঘর পরীক্ষা করে দেখেছে। বিস্ফোরণ নিয়ে ফরেন্সিক টিমের বক্তব্য, গ্যাস লিক করে বিস্ফোরণ হতে পারে। শনিবার দুপুরে ফরেন্সিক টিম খুতিয়ে পরীক্ষা করে দেখে ঘটনাস্থল। 'এলপিজি ক্লাউড এক্সপ্লোশনের' ফলে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করছে ফরেন্সিক টিম। গ্যাস ওভেন,গ্যাস সিলিন্ডার অক্ষত ছিল বিস্ফোরণের পর।
গ্যাসের পাইপে ছিদ্র থেকে থাকতে পারে। ওই ছিদ্র থেকে গ্যাস বেরিয়ে মাটিতে ছড়িয়ে পড়ে। কারন বাতাসের থেকে গ্যাস ভারী। এরপর রান্নাঘরে গ্যাস ধরাতে গিয়েই এই ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করছে ফরেন্সিক টিম। তবে তদন্তকারীদের মধ্যে প্রশ্ন উকি দিচ্ছে দেবাশিস রায়ের বয়ানে ঘরে তিনজনের উপস্থিতির কথা বলা হয়েছে। তিনি, তার স্ত্রী এবং শ্যালক পার্থ দে। কিন্তু কেউই গ্যাস লিক হওয়ার পর গ্যাসের গন্ধ পেয়েছেন তা উল্লেখ করেনি। এই বিষয়টি তদন্তকারীদের মধ্যে খটকা জাগিয়েছে।
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.