শিক্ষকদিবস না লজ্জা দিবস? ৫ই সেপ্টেম্বর প্রতিবাদী মহামিছিলের ডাক শিক্ষকদের।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ শিক্ষক দিবসের দিন মহামিছিলে হাটতে চলেছে রাজ্যের শিক্ষক মহল। ৫ সেপ্টেম্বর শিক্ষক দিবসের দিন এই মহামিছিলের ডাক দেওয়া হয়েছে। রাজ্য জুড়ে এসএসকে,এমএসকে,এস পঞ্চায়েত,মাদ্রাসা ও পুরসভার শিক্ষক শিক্ষিকাদের উপর পুলিশী নির্যাতন এবং গ্রেপ্তারি সহ শিক্ষিকাদের শ্লীলতাহানী, গত ২৪ জুন প্রাথমিক শিক্ষকদের উপর জলকামান ও গ্রেপ্তারি, ১৬ আগস্ট পার্শ্ব শিক্ষকদের আন্দোলনের উপর পুলিশের হামলা, ১৭ আগস্ট কল্যাণীতে আলো নিভিয়ে পার্শ্ব শিক্ষক শিক্ষিকাদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জ, ৯ আগস্ট শিক্ষাবন্ধুদের আন্দোলনে পুলিশের আক্রমণ ও গ্রেপ্তার, এছাড়াও কম্পিউটার শিক্ষক ও বৃত্তিমূলক শিক্ষকদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জ ও গ্রেপ্তাররের প্রতিবাদে পথে নামতে চলেছে শিক্ষক মহল।

 এই মহামিছিলে হেটে রাজ্যের শিক্ষক মহল প্রশাসনিক সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে নিজেদের গণতান্ত্রিক দাবিকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য হাটতে বদ্ধপরিকর। সমাজ গড়ার কারিগরদের শিক্ষক দিবসের দিন এহেন মহামিছিল নিঃসন্দেহ রাজ্যের ইতিহাসে লজ্জাদিবস হতে চলেছে। এই প্রসঙ্গে শিক্ষক ঐক্য মুক্তমঞ্চের সাধারণ সম্পাদক মইদুল ইসলাম জানিয়েছেন, রাজ্যের শিক্ষক শিক্ষকাদের উপর শুধু পুলিশের নির্যাতন ও গ্রেপ্তারির প্রতিবাদে এই মহামিছিলের ডাক দেওয়া হয়নি। সঙ্গে গণতান্ত্রিক শিক্ষক আন্দোলনের চাপে পড়ে সরকার যে সমস্ত ঘোষণা করেছে এবং নির্দেশ জারি করেছে সেগুলি কার্যকর করছে না।
উল্টে রাজ্য সরকার উদ্দেশ্যেপ্রণোদিতভাবে ধোঁয়াশা জিইয়ে রেখে নির্দেশ জারি করে রেখেছে। রাজ্য সরকারের এই ঘৃণ্য চক্রান্তের প্রতিবাদে চুপ করে বসে না থেকে প্রশাসনিক চক্রান্তকে রুখে দেওয়ার জন্যই শিক্ষক দিবসের দিনে মহামিছিলে পা মেলানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের শিক্ষক মহল।
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.