Header Ads

নিষেধাজ্ঞার পর মুখ খুললো সাকিব, পাশে হাসিনা এবং বিসিবি।

নজরবন্দি ব্যুরো: দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা  আরোপের পর মুখ খুললেন বিশ্বের অন্যতম অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশ ক্রিকেট আপাতত সাকিবের নিষেধাজ্ঞার ঝড়ে বেসামাল। সাকিব বিসিবির অফিসে বসে নিজের মুখে জানিয়েছে, 'ভালোবসার ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হওয়ায় আমি সত্যিই দুঃখিত। ম্যাচ গড়াপেটা করার প্রস্তাব গোপন করায় শাস্তি আমি মেনে নিয়েছি। দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে খেলোয়াড়দের ওপর নির্ভরশীল আইসিসির দুর্নীতি দমন শাখা(আকসু)। কিন্তু কঠিন পরিস্থিতিতে আমি নিজের দায়িত্ব পালন করতে পারিনি।' সাকিবের কথায়, 'বিশ্বের অধিকাংশ খেলোয়াড় ও ভক্তদের মতো আমিও চাই এই খেলা দুর্নীতি মুক্ত থাকুক। আমি আইসিসির সঙ্গে শিক্ষামূলক কর্মসূচিতে কাজ করতে চাই এবং নিশ্চিত করতে চাই, যেন আমার মতো কোন তরুণ ক্রিকেটার ভুল না করে।' দর্শক আর সমর্থকদের উদ্দেশ্যে সাকিবের বার্তা,' ক্রিকেট মাঠে আমি যেভাবে দর্শক সমর্থকদের পাশে পেয়েছি, আপনারা শুরু থেকে যেভাবে আমাকে সমর্থন করে গিয়েছেন, সেভাবেই পাশে থাকুন, এটাই চাই।' সাকিবের শাস্তি প্রসঙ্গে বিসিবি চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান পাপনের বক্তব্য, 'সাকিবের পাশে আছি এবং থাকবো।' বিসিবি চেয়ারম্যান 'শকড'। তার কথায়, 'শকড হওয়ার মতো এর চেয়ে বড় খবর আর নেই।' ভারতে সিরিজ নিয়ে জানিয়ে পাপন বলেছেন 'ভারতে সিরিজ খেলতে যাচ্ছি আমরা, সব পরিকল্পনা সাকিবকে নিয়েই করা হয়েছিল।' প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  সাকিবের শাস্তি নিয়ে জানিয়েছে,'সাকিবের ভুল ছিল, বেশি কিছু করার নেই। তবে আমি আর বিসিবি সাকিবের পাশে থাকবে। ওকে সবরকমের সহযোগীতা করা হবে। এই ধরনের ক্রিকেটারদের সঙ্গে জুয়াড়িরা যোগাযোগ করে। ও খুব একটা বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়নি। আইসিসিকে বিষয়ে জানায়নি
এখানে ও একটা ভুল করেছে। এক্ষেত্রে আপনারা জানেন, আইসিসি যদি ব্যবস্থা নেয়, আমাদের বিশেষ কিছু করার থাকেনা। তবু আমরা বলব, বিশ্ব ক্রিকেটে তার একটা অবস্থান আছে। একটা ভুল করেছে এবং সেটা ও বুঝতে পেরেছে। এখানে খুব বেশি করার নেই আমাদের।' এদিকে মঙ্গলবার সন্ধ্যের সময় সাকিব ভক্তরা মিরপুরের শের এ বাংলা স্টেডিয়ামে প্ল্যাকার্ড হাতে রাস্তায় নামে। শ্লোগান আর প্ল্যাকার্ডে ভক্তদের মূল বক্তব্য 'সাকিব কি চক্রান্তের শিকার। দুই বছর আগের ঘটনা এখন কেন সামনে এল।' সাকিবের স্ত্রী উম্মে আল হাসান নিজের ফেসবুক পোস্টে  দাবি,রেখেছেন,'লেজেন্ডরা কখনই রাতারাতি লেজেন্ড হননা। অনেক ঝড়ঝাপটা আর চড়াই উতরাই পার হতে হয় তাদের। কঠিন সময় আসবেই, কিন্তু শক্ত মনে সেটা তারা মোকাবিলা করেন। এবং আমরা জানি সাকিব কতটা শক্তিশালী।এটা নতুন শুরু, যেকোন সময়ের চেয়ে আরোও শক্তিশালী হয়ে ও ফিরে আসবে। চোট পেয়ে ও ক্রিকেট থেকে দূরে ছিল। আমরা দেখেছি কিভাবে বিশ্বকাপে ফিরে এসেছিল। এটা কেবল সময়ের ব্যাপার। আমরা আপনাদের সমর্থন ও ভালবাসায় সত্যিই কৃতঞ্জ। এটাই ঐক্য, যা একটা জাতির জন্য প্রয়োজন।' অন্যদিকে বাংলাদেশের ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মোর্তজা ফেসবুক পোস্টে লিখেছে,'১৩ বছরের সহযোদ্ধার আজকের ঘটনায় নিশ্চিত ভাবেই কিছু বিনিদ্র রাত কাটবে আমার। তবে কয়েকদিন পর এটা ভেবেও শান্তিতে  ঘুমতে পারবো যে, তার নেতৃত্বতেই ২০২৩ বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলব। কারণ নামটা সাকিব আল হাসান...!!!
Loading...

No comments

Theme images by enjoynz. Powered by Blogger.