Header Ads

শাস্তির মুখে পড়তে চলেছে সাকিব আল হাসান।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ বড়সড় সাস্তির মুখে পড়তে চলেছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের 'পোস্টার বয়' সাকিব আল হাসান। সাকিবের বিরুদ্ধে অভিযোগ, বছর দুয়েক আগে এক আন্তজার্তিক ম্যাচের আগে এক বুকির কাচঝ থেকে সাকিব প্রস্তাব পেয়েছিলেন। কিন্তু সাকিব বুকির প্রস্তাব নাকপচ করে দেয় শুধু তাইই নয়। সাকিব পুরো বিষয়টি চেপে যায়। ওই বুকু আইসিসির কালো তালিকাভুক্ত। এর পুরে আইসিসি বিষয়টি জানতে পারে, তদন্ত শুরু করে। আইসিসির অ্যান্টি করাপশন অ্যান্ড সিকিউরিটি ইউনিট সাকিবকে এই বিষয়ে জিঞ্জাসাবাদ করে। জিঞ্জাসাবাদের সময় সাকিব ঘটনার কথা স্বীকার করে নেয়। আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, কোন ক্রিকেটার, কোচিং স্টাফ, আম্পায়ার, স্কোরার বুকিদের কাছ থেকে প্রস্তাব পান তাহলে বিষয়টি আইসিসি কিংবা সংশ্লিষ্ট বোর্ডের দুর্নীতি দমন শাখায় জানানো বাধ্যতামূলক। কিন্তু সাকিব না জানিয়ে গোটা বিষয়টি গোপন করে যায়। সাকিব যেভাবে গোটা বিষয়টি গোপন করে গেছে তাতে করে আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী বড়সর শাস্তির মুখে পড়তে চলেছে। আইসিসির নিয়ম অনুযায়ো, এই ধরনের অপরাধ করলে সর্বনিম্ন ৬ মাস আর সর্বোচ্চ ৫ বছরের শাস্তির খাঁড়া নেমে আসতে পারে সংশ্লিষ্ট ব্যক্ত্রির ওপর। কিন্তু আইসিসির অ্যান্টি করাপশন অ্যান্ড সিকিউরিটি ইউনিট সাকিব তদন্তে সহযোগিতা করেছে। আতি সম্ভবত ১৮ মাসের শাস্তি পেতে চলেছে বাংলাদেশের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। ইতিমধ্যে আইসিসি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড(বিসিসবি) নির্দেশ দিয়েছে যাতে সাকিব জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের সঙ্গে অনুশীলন করতে না পের। ফলে নভেম্বরে ভারত সফরে বাংলাদেশ টিমের সঙ্গে সাকিবকে দেখা যাবে না। এদিকে এই ইস্যুতে সাকিব আল হাসান নিজের দেশের ক্রিকেট বোর্ডকে পাশে পেয়েছে।      
Loading...

No comments

Powered by Blogger.