Header Ads

সরকারি কর্মীদের 'মস্তিস্কের বিশ্রামের' জন্য ১৭ দিন ছুটির আগাম ঘোষণা মমতা-র!

নজরবন্দি ব্যুরোঃ বছর শুরুর আগেই পুজোর ছুটি ঘোষণা মমতার। নজরবন্দি ব্যুরো: দুর্গোপুজো আসতে ঢেড় দেরি। তার আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২০২০ সালের দুর্গোপুজোর ছুটির দিনক্ষণ ঘোষণা করে দিলেন। আগামী বছর ১৭ থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত ছুটি পেতে চলেছে রাজ্যের সরকারি কর্মচারীরা। মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন,"মস্তিস্কের বিশ্রামের জন্য ছুটি দরকার। ৩৬৫ দিন কাজ করতে হলে কয়েক দিনের ছুটি তো লাগেই। তবে মস্তিস্কের বিশ্রামের জন্য আমি হয়তো একটু বেশি ছুটি দিই।" আসলে জগদ্ধাত্রী পুজোর উদ্বোধনে এসেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
আর উদ্বোধনে এসেই রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্যে 'কল্পতরু' হয়ে ওঠেন মুখ্যমন্ত্রী। মঞ্চে দাঁড়িয়ে সারা বছরের ছুটির তালিকা প্রকাশ করেন। এদিনই রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা পুজোর ছুটি কাটিয়ে কাজে যোগ দিয়েছে। আর এইদিনই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সরকারি কর্মচারীদের জন্য সুখবর ঝাঁপি খুলে দিলেন।
কিন্তু ছুটির ঘোষণায় খুশি নন রাজ্য সরকারি কর্মীদের একটা বড় অংশ। কারন কিছুদিন আগেই সরকারি কর্মীদের মহার্ঘ্য ভাতা মামলায় স্যাট রায় দিয়েছিল, কত ডিএ বকেয়া, রাজ্য সরকার কে তা নির্ধারণ করতে হবে ৩ মাসের মধ্যে আর দিতে হবে ৬ মাসের মধ্যে!
বর্তমান পরিস্থিতি হল স্যাটের দেওয়া সেই তিন মাসের সময়সীমা শেষ হয়েছে ইতিমধ্যেই। কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে রাজ্যসরকার স্যাটের রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালত অর্থাৎ সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার কথা ভাবছে। এই অবস্থায় কনফেডারেশন অব স্টেট গভমেন্ট এমপ্লয়িজ আদালত অবমাননার মামলা করেছে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে। কনফেডারেশন অব স্টেট গভমেন্ট এমপ্লয়িজের সাধারণ সম্পাদক মলয় মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন "আমরা ট্রাইবুনালে আদালত অবমাননা মামলা দায়ের করেছলাম৷ মামলাটি আগামী মঙ্গলবার ২ নম্বর বেঞ্চে উঠতে চলেছে৷" অন্যদিকে জানা গেছে, রাজ্য সরকার ট্রাইবুনালে রিভিউ পিটিশন দাখিল করেছে। প্রশ্ন উঠছে স্যাটের দেওয়া তিন মাস সময় অতিক্রান্ত হয়ে যাওয়ার পর রাজ্য সরকার কিভাবে এখন রিভিউ পিটিশন দাখিল করতে পারে?
Loading...

No comments

Theme images by enjoynz. Powered by Blogger.