Header Ads

মস্তিষ্কের শক্তি কীভাবে বৃদ্ধি করবেন রইল তার কিছু টিপস্।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ স্মৃতিশক্তি নষ্টের বড় কারণ হল, মানসিক স্ট্রেস। এটি যেমন সাময়িক স্মৃতিশক্তি নষ্ট করে তেমনই অত্যাধিক স্ট্রেস দীর্ঘমেয়াদি স্মৃতিশক্তিও নষ্ট করে। তাই, চেষ্টা করুন এর থেকে দূরে থাকতে।কারণ, স্মৃতিশক্তিই মানুষের বড় সম্বল। এই শক্তি ছাড়া মানুষ যেন জড় সমান। বয়স বাড়ার সাথে সাথে স্মৃতিশক্তি হ্রাসের প্রবণতা বেশি দেখা যায়। তবে, বর্তমানে অল্প বয়সীদের মধ্যেই এর প্রভাব পড়তে বেশি দেখা যাচ্ছে। এত পড়াশোনা করেছেন তবুও কিছু মনে থাকছে না। আবার অনেকের মতে, আমার বুদ্ধি কম তাই ভাল ফল হয়নি। এর কারণ কিন্তু স্মরনশক্তি কম হওয়া। এটি সত্যিই একটি বড় সমস্যা। আর এই সমস্যা সমাধানের জন্য প্রতিনিয়তই বহু চেষ্টা করে যাই আমরা। বৃদ্ধকালে স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়াটা যেমন স্বাভাবিক তেমনি অল্প বয়সে এর প্রভাব পড়া অস্বাভাবিক। এখন প্রশ্ন হল এর থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়, হ্যাঁ, এখান থেকে বেরোনোর বহু উপায় রয়েছে। যা আপনার স্মরণশক্তি বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে।
তাই তার জন্য চেষ্টা করুন বই পড়তে, গান শুনুন বা নিজের ভাল লাগা কিছু কাজ করুন। ঘুমোতে যাওয়ার আগে বেশি স্ট্রেস অনুভব করলে শান্ত হয়ে বসে চোখ বন্ধ করে লম্বা শ্বাস গ্রহণ করুন। এতে মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে এবং মস্তিষ্ককে সচল রাখে।বাঁধাধরা রোজকার জীবন থেকে বেরিয়ে এসে একটু নতুন কিছু করার বা শেখার চেষ্টা করুন। নতুন কাজ করার মাধ্যমে মস্তিষ্ককে চ্যালেঞ্জ করুন। এভাবেই আপনার মগজের শক্তি বৃদ্ধি পাবে। ছবি আঁকা শিখুন, বা সেখান গান করার চেষ্টা করুন, কোনও যন্ত্রাংশ বাজান বা বিদেশি ভাষা শিখুন।এতে করে আপনার স্মৃতিশক্তি বাড়বে।স্মরণশক্তি বাড়ানোর আর এক উপায় হল মেডিটেশন। এর ফলে আমাদের মনের চিন্তা ও চাপ অনেকটাই কমে যায়। আর, এই মেডিটেশন করলে যেকোনও কাজেই মনোযোগ বাড়ে এবং ব্রেনের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। ফলে, কোনও কিছু মনে রাখার বা মনে করার ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়তে হয়না। প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে ও রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে কমপক্ষে ১৫ মিনিট মেডিটেশন করুন। চোখ বন্ধ করে লম্বা শ্বাস নিয়ে মনকে শান্ত করার চেষ্টা করুন। এক সপ্তাহের মধ্যে আপনি এর সুফল পেতে পারেন।এবং মগজের শক্তি বাড়াতে সঠিক খাবার খান মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতাকে বৃদ্ধি করতে সঠিক খাবার খাওয়া অত্যন্ত প্রয়োজন।
 কারণ, আমরা সারাদিনে যা খাই তার মাত্র ২০ শতাংশ শর্করা ও শক্তি আমাদের মস্তিস্কে প্রবেশ করে। কাজেই মস্তিস্কের সঠিক সঞ্চালন নির্ভর করে গ্লুকোজের মাত্রার উপর। এই মাত্রার ঘাটতি হলেই দেখা দেয় নানান সমস্যা। তাই মস্তিস্কের কার্যক্ষমতাকে বৃদ্ধি করতে নিয়মমাফিক এবং স্বাস্থ্যকর খাবার অত্যন্ত প্রয়োজন। যেমন - ১) কলা - কলাতে থাকে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম ও ভিটামিন বি, যা নার্ভ ইমপালস্ ট্রান্সমিশনে সাহায্য করে এবং ব্রেনকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। ২)মাছের মাথা ও তেল ,মাছ ও মাছের মাথা হল ব্রেনের খাদ্য, কারণ, মাছের তেল ব্রেন সেল গঠন করে এবং মস্তিষ্কের প্রদাহ কমায় ও মস্তিষ্ককে রক্ষা করে। এছাড়া, মাছের তেলে ওমেগা-৩ পাওয়া যায়, যা ব্রেনের জন্য উপকারি। ৩)কলিজা-মাংসের কলিজায় থাকে আয়রন ও ভিটামিন বি, যা মস্তিস্কের জন্য উপকারি। ৪)শাকসবজি, পালং শাক, বিভিন্ন ফল, মাছ, বাদাম, তেলের বীজ, বিনস্ ইত্যাদি মস্তিষ্কের জন্য খুব উপকারি
Loading...

No comments

Theme images by lishenjun. Powered by Blogger.