Header Ads

থানার মধ্যে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী ওসি

নজরবন্দি ব্যুরোঃ থানার মধ্যে পুলিশ কোয়াটার থেকে ওসির ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়। বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে ফ্রেজারগঞ্জ কোস্টাল থানায়। দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। মৃত ওসি গৌতম বিশ্বাস উত্তর ২৪ পরগনার সোদপুরের বাসিন্দা ছিলেন। দুই ছেলে মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়ে তাঁর সংসার। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বছর খানেক আগে ফ্রেজারগঞ্জ উপকূল থানায় ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন গৌতম বিশ্বাস। অন্যান্য দিনের মতো বুধবার রাতে কাজ সেরে থানার মধ্যে তাঁর কোয়াটারের ঘরে ঘুমোতে গিয়েছিলেন। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে ঘর থেকে তার আর কোন আওয়াজ পাওয়া যায়নি। আওয়াজ না পেয়ে থানার অন্যান্য পুলিশকর্মীরা দরজা ধাক্কাতে থাকেন।
কিন্তু কোন আওয়াজ না পাওয়ায় সন্দেহ হয় ওই পুলিশকর্মীদের। তারপর জানালা দিয়ে তাঁরা দেখেন গলায় দড়ির ধুতির ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলছে গৌতম বিশ্বাসের দেহ। এরপর দরজা ভেঙে ভিতরে ঢোকেন ভাঁরা। নামিয়ে আনা হয় ওসির দেহ। স্থানীয় এক চিকিৎসক এসে পরীক্ষা করে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। এরপরই দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়। খুন বলে প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান। পুলিশ একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। ঠিক কি কারণে তিনি আত্মঘাতী হলেন সে বিষয়ে কিছুই বলতে পারছেন না সহকর্মীরা। তাঁর আত্মঘাতী হওয়ার কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে সুন্দরবন পুলিশ জেলা সুপার বৈভব তিওয়ারি বলেন " বিষয়ই আমাদের কাছে অপ্রত্যাশিত। কেন তিনি আত্মঘাতী হলেন, তদন্ত শুরু হয়েছে। দেহের কাছ থেকে কোন সুইসাইড নোট মেলেনি। তাঁর পরিবারের আছে খবর পাঠানো হয়েছে।"

No comments

Theme images by lishenjun. Powered by Blogger.