Header Ads

আবেদনের ভিত্তিতে বদলি চাই; না পেলে আইনের দ্বারস্থ হবেন শিক্ষক–শিক্ষিকারা।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ গতকাল উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ব্যারাকপুর এ United Teachers’ Welfare Association (UTWA) এর একটি গুরুত্বপূর্ণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভবিষ্যতে আইনি পদক্ষেপ, বর্ধিত রাজ্য কমিটি গঠন, বিভিন্ন নীতি নির্ধারণ, সহ একগুচ্ছ বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে সংগঠনের রেজিস্টার্ড অফিসে।  মিটিং এ উপস্থিত ছিলেন রাজ্য সভাপতি শ্রী স্বপন কুমার দে, রাজ্য সম্পাদক শ্রী সুশোভন মুখার্জী সহ গভর্নিং বডি ও রাজ্য কমিটির অন্যান্য সদস্য-সদস্যা এবং বিভিন্ন জেলা থেকে আগত বদলি প্রার্থী শিক্ষক – শিক্ষিকারা।

     গতকাল দিনের প্রথম অর্ধে সভাপতি, সম্পাদক সহ সংগঠনের এক প্রতিনিধি দল ভবিষ্যতে আইনি লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিতে হাইকোর্ট এর একজন বিশিষ্ট আইনজীবীর’র চেম্বারে যান। সেখানে পরবর্তী পদক্ষেপ সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা হয়। আলোচনার মাধ্যমে অনেক গুলি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উঠে এসেছে। এখনও পর্যন্ত আবেদনের ভিত্তিতে বাড়ির কাছে বদলির জন্যে তিনটি দাবি করা হয়েছে ।  
এগুলি হল : -
I) দুরত্ব ও অভিজ্ঞতা উভয় কে গুরুত্ব গিয়ে প্রতিবছর জেনারেল ট্রান্সফার চালু করা।
II) সমগ্র চাকুরী জীবনে ন্যূনতম তিনবার মিউচুয়াল ট্রান্সফার এর সুযোগ দেওয়া।
III) GT এবং MT, একবার করে উভয়েরই সুযোগ দেওয়া।
 আইনজীবীর’র সাথে আলোচনার সুবাদে আরেকটি নতুন দাবি এই দাবিপত্রের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত হতে চলেছে।
এটি হল : –
“দুজনের বেশি শিক্ষক – শিক্ষিকার মধ্যে মিউচুয়াল ট্রান্সফার চালু করা”।

      গতকালের সভায় অন্যান্য বিভিন্ন বিষয়গুলির সাথে এই বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। সেখানে উপস্থিত শিক্ষক – শিক্ষিকারা বলেন আগামীতে আইনি লড়াই চালাতে গেলে UTWA কে আর্থিক ভাবেও শক্তিশালী হতে হবে। সেই লক্ষ্যে পৌঁছতে, বদলি চাইছেন এমন শিক্ষক – শিক্ষিকাদের মাঝে এই বার্তা কে আরও বেশি করে পৌঁছে দেবেন বলে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছেন। বীরভূম থেকে আগত শিক্ষিকা বৈশাখী মন্ডল বলেন, অনেক শিক্ষক – শিক্ষিকাই আছেন যারা বাড়ির কাছে বদলি পাবার জন্য অনেক অর্থ ব্যয় করতেও প্রস্তুত। কিন্তু কোনো অনৈতিক উপায়ে নয়, স্বচ্ছ ভাবে আবেদনের ভিত্তিতেই তারা বদলি চান। শিক্ষিকা সুপর্ণা সরকার বলেন, এখনো অনেকেই UTWA এর কথা জানেন না। বদলির দাবি নিয়ে UTWA এর বিভিন্ন কর্মসূচী ও পরবর্তীতে আইনি পদক্ষেপ নেবার বার্তা টা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সকলের কাছে পৌঁছে দিতে হবে। 
      গতকালের সভার সভাপতি তথা সংগঠনের রাজ্য সভাপতি শিক্ষক স্বপন কুমার দে জানান, “বর্তমান বদলির নিয়মে দুই এর বেশি শিক্ষক - শিক্ষিকার মধ্যে মিউচুয়াল ট্রান্সফার এর কোনো সংস্থান নেই। এটি চালু করতে গেলে আইনি পথ অবলম্বন করা ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প নেই l” সম্পাদক সুশোভন বাবু বলেন, তাদের দাবি গুলির সাথে প্রত্যক্ষভাবে কোনো আর্থিক দাবি দাওয়া যুক্ত নয়। শিক্ষার সামগ্রিক উন্নতির স্বার্থে, তাদের এই আবেদনে সাড়া দেবার ক্ষেত্রে সরকারের দেরি করা উচিত নয়। তার কথায়, “বর্তমান রাজ্য সরকারই শিক্ষকদের জন্যে প্রথম বদলি প্রক্রিয়া চালু করেন। কিন্তু এই প্রক্রিয়া নিয়মিত চালু না থাকলে এবং বর্তমান নিয়মের কিছু পরিবর্তন না ঘটালে সরকারের গৃহীত এই শুভ উদ্যোগের মূল উদ্দেশ্যই ব্যর্থ হবে। তাই খুব দ্রুত আবেদনের ভিত্তিতে বাড়ির কাছে বদলি চালু করা দরকার।"
Loading...

No comments

Theme images by lishenjun. Powered by Blogger.