Header Ads

রবিবার কলকাতা বন্দরের নাম পরিবর্তন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

নজরবন্দি ব্যুরোঃ এবার কলকাতার খিদিরপুর ডগ অর্থাৎ ‘কলকাতা বন্দরের’ নাম পরিবর্তন হল। পোর্ট ট্রাস্টের সার্ধশতবর্ষ উপলক্ষে ইন্দোরে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে রবিবার যোগ দিয়ে এমনটাই জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিন প্রধানমন্ত্রী কলকাতা বন্দরের নাম বদলে ‘শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় বন্দর’ হিসাবেই ঘোষণা করেন। অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে একধিক প্রকল্প ও পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেন তিনি। বন্দরের ইতিহাসকে মাথায় রেখে অত্যাধুনিক ঢঙে কলকাতার খিদিরপুর বন্দরকে সাজিয়ে তোলা হবে। তৈরি হবে পর্যটনের পরিবেশ। ক্রুজে করে ভ্রমণের ব্যবস্থাও করা হবে। আগে এই বন্দর থেকে সরাসরি বিদেশে ও দেশের একাধিক জায়গায় যাওয়া যেত। স্বাধীনতার পর আস্তে আসতে নতুন ভারত গড়ার সঙ্গে এই বন্দরেএ অনেক ভূমিকা রয়েছে বলেও জানান মোদী। এখন এই বন্দর থেকে মূলত নানান দ্রব্য ও সামগ্রীর আমদানি রপ্তানির কাজ হয়। প্রতিবেশী দেশগুলিতে ভ্রমনের ক্ষেত্রেও আগামী দিন এই বন্দর নতুন রূপে সেজে উঠতে চলেছে। জলশক্তির মাধ্যেমে নর্থ‌-ইষ্ট নেট‌ওয়ার্ক সংযুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। গঙ্গাইয় প্রচুর পরিমানে পলি জমা হওয়ায় নাব্যতা বেড়েছে অনেক। ফলে বড় জাহাজ সরাসরি পোতাশ্রয়ের আছে ঢুকতে পারে না। তাই গঙ্গাবক্ষে ড্রেসিং করে নদীর নাব্যতা কমিয়ে আনা হবে। ৩২ একর জমিতে পর্যটনের জন্য্ বিশেষ ব্যাবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এক ধাক্কায় জাহাজের সংখ্যা ১৫০০ করা হবে। হলদিয়া-বারানসীতে জাহাজ চলাচল সুরু হয়েছে বলেও জানিয়েছেন মোদী।
রবিবার সকালে নেতাজী ইনডোর স্টেডিয়ামে আয়োজিত পোর্ট ট্রাস্টের অনুষ্ঠানে যোগদিতে বেলুড় থেকে একটি ক্রুজে করে জলপথে কলকাতা আসেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর যোগদানের সময়ই কালোপতাকা হাতে গো-ব্যাক শ্লোগান ডীয়ে ইন্ডোরের বাইরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন বাংলার কোলেজ পড়ুয়ারা। এই অনুষ্ঠানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় না থাকলেও প্রতিবাদী পড়ুয়ারা ‘দিদি-মোদী’র সেটিংয়ের অভিযোগ তুলেও সরব হন।

No comments

Theme images by lishenjun. Powered by Blogger.