Header Ads

বাম-কংগ্রেসের ডাকা ধর্মঘট ঘিরে উত্তপ্ত রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ আজ বামদের ধর্মঘট ঘিরে উত্তপ্ত রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত। শহর কলকাতার যাদবপুর এলাকা সকাল থেকেই উত্তপ্ত। আজ সকাল দশটা নাগাদ যাদবপুরের 8-B বাসস্ট্যান্ড এলাকা পুলিশ ও ধর্মঘটীদের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের রূপ নেয়। আটক করা হয় সিপিএম নেতা তথা বিধায়ক সুজন চক্রবর্তীকে। এই রকম ঘটনা ঘটেছে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকাতে। ধর্মঘট সফল করতে বুধবার সকালে বর্ধমান শহরের বীরহাটা ও পারবীরহাটা এলাকায় বাস-সহ অন্যান্য যানবাহনে মিছিল করে এসে হামলা করে বাম সমর্থকরা। কয়েকটি বাস, গাড়ি ও টোটো ভাঙচুর করা হয়। টোটো থেকে জোর করে যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়া হয়। ফলে চরম দুর্ভোগে পড়েন সাধারণ মানুষ। অপর দিকে বুধবার ভোর থেকেই রাজ্যের বেশ কয়েকটি জায়গায় রেল অবরোধ শুরু হয়েছে। অবরোধের জেরে ট্রেন চলাচল ব্যহত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখার ডায়মন্ড হারবার, চম্পাহাটিতে শুরু হয়েছে অবরোধ। ওভারহেডের তারে কলাপাতা ফেলে শুরু অবরোধ।
এছাড়াও উত্তর ২৪ পরগনার শ্যামনগর ,হৃদয়পুরে রেল অবরোধ করেন ধর্মঘটীরা। বারাসতে সকাল থেকে ববনধের সমর্থনে মিছিল করে বামেরা। চাঁপাডালি মোড়ে মিছিল গেলে শুরু গন্ডগোল। ধর্মঘটীদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন স্থানীয় তৃণমূলকর্মীরা। একইসঙ্গে অবরোধ তুলতে গেলে পুলিশের সঙ্গেও বচসা শুরু হয়ে যায় বামেদের। এদিকে, চাঁপাডালি মোড়ে অটো থেকে যাত্রীদের নামাতে শুরু করেন বাম নেতা-কর্মীরা। বিষয়টি নজরে আসতেই হস্তক্ষেপ করে পুলিশ। পুনরায় অটোতে যাত্রী তোলার চেষ্টা করা হয়। পুলিশের সঙ্গে তুমুল ধস্তাধস্তি চলে বাম নেতা-কর্মীদের। অন্য দিকে উত্তরবঙ্গের শিলিগুড়িতে বনধের তেমন প্রভাব পড়েনি। দোকানপাট বন্ধ থাকলেও সরকারি বাস চলছে. অটো, টোটো চলছে। পাহারে প্রচুর পর্যটকরা আসছে।
প্রচুর পুলিস রাস্তায় নেমেছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বনধের সমর্থনে মিছিল শুরু করেছেন ধর্মঘটীরা। জলপাইগুড়িতে সকালেই বাস বন্ধ করার জন্য পথে নামেন বনধ সমর্থকরা। আলিপুরদুয়ারে বেসরকারী বাস বন্ধ।সরকারী বাস চলছে।আলিপুরদুয়ার চৌপথীতে রাস্তায় বসে বনধ সমর্থনকারীরা বিক্ষোভে সামিল হন।বাস আটকে দেন বনধ সমর্থনকারীরা। সব মিলিয়ে বাম-কংগ্রেসের ডাকা বন্ধে রাজ্য জুড়ে মিস্র প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে।
Loading...

No comments

Theme images by lishenjun. Powered by Blogger.