Header Ads

বিছানায় ছুঁড়ে ফেলে আমার সারা শরীরে অশ্লীল ভাবে ছুঁতে থাকে গনেশ, গুরুতর অভিযোগ আরও এক মহিলার

নজরবন্দি ব্যুরোঃ মিটু বিতর্কে আবারও কাঠগড়ায় ডান্স কোরিওগ্রাফার গণেশ আচারিয়া। নৃত্যশিল্পী দিব্যা কোটিয়ানের পর এবার এক সিনিয়র ব্যাকগ্রাউন্ড ডান্সার গুরুতর অভিযোগ করলেন গনেশের বিরুদ্ধে। তাঁর অভিযোগ 'প্রায় ৩০ বছর আগে আমি পশ্চিম আন্ধেরির সাহিবা হলে নাচ শিখতে যেতাম। আমার বয়স তখন আঠেরোর কাছাকাছি। আমার গুরু কমল মাস্টারকে অ্যাসিস্ট করত গণেশ। এক দিন গণেশ আমায় ফোন করে ক্লাসে যেতে বলে। ওর বন্ধু দিলীপ আমায় খার সাবওয়ে থেকে গাড়িতে তুলে হোটেল ইস্ট অ্যান্ড ওয়েস্টে নিয়ে যায়। আমার তখনও পর্যন্ত কিছু খারাপ মনে হয়নি।
কিন্তু ওখানে গিয়ে দেখি ওই ঘরে আর কোনও ছাত্রছাত্রী নেই। এমন সময় গণেশ ঘরে ঢোকে। নাচ শেখানোর নামে আমার ঘাড়ে, গালে চুমু খেতে শুরু করে। যখন বাধা দিতে যাই তখন আমায় সে বলে, আমাকে বিয়ে করতে চায়। বলেই বিছানায় ছুঁড়ে ফেলে আমার সারা শরীরে অশ্লীল ভাবে ছুঁতে থাকে। আমি চিত্কার করতে থাকি, ওকে জানাই আমার পিরিয়ড চলছে। ঠিক তখনই গণেশ রেগে গিয়ে ছেড়ে দেয় আমায়। বলে, ক্যায়া ইয়ার মুড খারাব কর দিয়া। আমি হোটেল থেকে পালিয়ে যাই আর কোনওদিন ক্লাসে ফিরে যাইনি। যদিও সমস্ত অভিযোগকে অস্বীকার করেছেন গণেশ। সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে।
Loading...

No comments

Theme images by lishenjun. Powered by Blogger.