শিল্প বিরোধী নন তিনি! প্রমাণ করতে ফোর্ডকে রাজ্যে আমন্ত্রন মুখ্যমন্ত্রীর।




নজরবন্দি ব্যুরোঃ বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তখন বিরোধী নেত্রী ছিলেন। সালটা সম্ভবত ২০০৯-২০১০। কারখানা প্রস্তুত। অনুসারি শিল্প আসতে শুরু করেছে। সবকিছু ঠিকঠাক চললে আর হয়তো দিন পনেরো পর থেকেই ওই কারখানা থেকে দুনিয়ার সব থেকে ছোট গাড়ি প্রোডাকশন হতে শুরু করে দিত। হ্যাঁ, ন্যানো গাড়ির কোথাই বলা হচ্ছে। যে কারখানাটি গড়ে উঠেছিল সিঙ্গুরে।


বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীর দাবি ছিল, সিঙ্গুরের মানুষের থেকে জোর করে জমি কেড়ে নিয়ে টাটাদের হাতে তুলে দিয়েছে তৎকালীন বামফ্রন্ট সরকার। তার জেরে লাগাতার আন্দোলন, ধর্না, জাতীয় সড়ক আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখানো থেকে শুরু করে বাদ যায়নি কিছুই। টাটারা বাধ্য হয় রাজ্য ছাড়তে। তার পরে থেকেই বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীর গায়ে একটা শিলমোহর লাগানোর চেষ্টা চলছে, তিনি শিল্প বিরোধী। অবশ্য মুখ্যমন্ত্রী ক্ষমতায় আসার পর থেকেই এই শিল্প-বিরোধী তকমা ঘোচাতে বারবার উদ্যোগী হয়েছেন। বাংলাতে শিল্প আনতে একাধিক বার পাড়ি দিয়েছেন বিদেশে। কিন্তু এই নিয়ে বিরোধীদের কটাক্ষ কম শুনতে হয়নি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

আর তাই সেই অপবাদ ঘোচাতে নতুন উদ্যোগ নিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গত সোমবার ইস্কোন মন্দিরের এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। আর সেই অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফোর্ডের কর্নধার হেনরি ফোর্ডের প্রপৌত্র আলফ্রেড ফোর্ডকে রাজ্যে গাড়ি কারখানা করার প্রস্তাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এই প্রস্তাবে আলফ্রেড ফোর্ড কি রাজি হলেন? মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, “ফোর্ডের চেন্নাইয়ে কারখানা রয়েছে। আমাদের রাজ্যেও কারখানা গড়তে প্রস্তাব দিয়েছি। এই প্রস্তাব খতিয়ে দেখবে বলে জানিয়েছে আলফ্রেড।” এদিকে আলফ্রেডের দাবি, গাড়ি কারখানার বিষয়টি কতটা এগোবে তা এখন নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়। তবে মুখ্যমন্ত্রীর এই প্রস্তাব তারা মাথায় রাখবেন বলেই জানিয়েছেন।


Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*