Header Ads

সমস্ত অধিকারহরণ শিক্ষকদের! এবার আদালতে যাওয়ার পথও বন্ধ! নতুন খসরা রাজ্য সরকারের।


নজরবন্দি ব্যুরোঃ রাজ্যের শিক্ষকদের আচরণবিধি সংক্রান্ত নতুন খসড়া আনতে চলেছে রাজ্য সরকার২৮ পৃষ্ঠার এই খসড়ায় আসলে শিক্ষকদের সমস্ত অধিকার হরণ করে তাদের হাত-পা আষ্টেপৃষ্ঠে বেঁধে ফেলা হয়েছে, অধিকার শিক্ষক মহলের একটা বড় অংশের
কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের আচরণ বিধি সংক্রান্ত ২৮ পৃষ্ঠার নতুন খসরা আনছে রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দপ্তরএই খসড়ায় একাধিক বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ওপরবার থেকে শিক্ষকদের পুলিশি রেকর্ড যাচাই করা হবে। নতুন খসড়া বিধি অনুযায়ী, শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ পর্বের মেয়াদ এক বছর থেকে বাড়িয়ে দুবছর করা হয়েছে।
খসড়ায় আরও বলা হয়েছে, রাজ্যের কোনো শিক্ষক বা শিক্ষাকর্মীর কাজে যদি কর্তৃপক্ষ অসন্তুষ্ট হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে পারে পরিচালন সমিতি। এমনকি ওই শিক্ষকের চাকরি অবধি চলে যেতে পারে। কর্তৃপক্ষের কোনো সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে আদালতে যেতে পারবে না শিক্ষকরা। রাজ্য সরকারের গঠন করা একটি ট্রাইব্যুনালে আপিল করতে পারবেন মাত্র শিক্ষকরা। তবে কোনো আইনজীবী রাখার অধিকার থাকবে না তাদের। এমনকি সংবাদ মাধ্যমের কাছে মুখ খোলার ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে এই খসড়া বিধিতে।
সরকারের নতুন এই খসড়ার বিরোধিতা করে সরব হয়েছেন শিক্ষক মহলের একটা বড় অংশ। তাদের মতে এই নতুন খসড়া কমিটিতে শিক্ষার উৎকর্ষ সাধনের কোনো চেষ্টা করা হয়নি। আসলে তা রাজ্যের শিক্ষকদের অধিকার হরণ করে তাদের শায়েস্তা করার একটি উপায় মাত্র। এই খসড়া বিধিতে শিক্ষকদের প্রতি পদে অপমান করা হয়েছে বলে অভিযোগ জানিয়েছেন শিক্ষকরা। তবে এই খসড়া বিধির উদ্দেশ্য সংক্রান্ত বিষয়ে সঠিক ভাবে জানতে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন কিংবা এসএমএস-এর উত্তর দেননি।

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.