অশিক্ষিত? তৃণমূল বিধায়কদের ইঙ্গিত করে নজিরবিহীন আক্রমন মুকুল পুত্রের!!


নজরবন্দি ব্যুরোঃ মুকুল রায় কে মাঝেমধ্যেই এই কটাক্ষ শুনতে হয় তৃনমূল যদি "পিসি ভাইপোর কোম্পানি" হয় তাহলে সেখানে আপনার ছেলে এখনো কি করছে? ব্যাক্তি স্বাধীনতার কথা বলে মাঝে মধ্যেই এর উত্তর এড়িয়ে যান মুকুল বাবু।
রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা তিনি যেটা বলেন না সেটা হল শুভ্রাংশু দল ছাড়লে বাবার মুখ রক্ষার্থে ছাড়তে হবে বিধায়ক পদও!
কারন মুকুল রায় বিজেপি তে যোগ দেওয়ার আগে ছেড়েছিলেন এমপি-র পদ! আবার অন্য পক্ষের ধারনা শুভ্রাংশু কে তৃণমূলে রেখে দেওয়া মুকুল বাবুরই একটা রাজনৈতিক কৌশল!  যাই হোক বিজপুরের বিধায়ক যে ক্রমাগত দলের মধ্যে কোনঠাসা হচ্ছেন তা বলাই বাহুল্য! হয়তো দিন দিন কোণঠাসা হতে হতে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটল আজ! ডঃ বি আর আম্বেদকরের জন্মদিন পালন করতে গিয়ে নিজের দলের সহকর্মীদের বিরুদ্ধে আকারে ইংগিতে উগরে দিলেন একরাস ক্ষোভ!
সূত্রের খবর, আজ কাচরাপাড়ার লিচুতলায় নিজের অনুগামী দের নিয়ে তিনি পালন করছিলেন ডঃ বি আর আম্বেদকরের জন্মদিন।  সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকরা তাকে দলের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকার ব্যাপারে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন,  "দল সম্মান দিয়ে যেখানে ডেকেছে সেখানেই গেছি, নভেম্বরে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে দুটি অনুষ্ঠানে গেছি।" এর পরেই তার বিস্ফারক মন্তব্য
"একটাই আক্ষেপ, বীজপুরের যারা দলীয় কর্মী তাঁরা নিজের বাবাকে বাবা বলতে পছন্দ করেন না। পাশের বাড়ির কাকাকে বাবা বলে ডাকতে পছন্দ করেন।” এখানেই থামেননি তিনি!
শুভ্রাংশু আরও বলেন, “বীজপুরে যারা রাজনীতিতে রয়েছেন বা কোনও পদে রয়েছেন, তাঁদের কয়েকটা জিনিস মাথায় রাখা দরকার। আমি দেখলাম একটা স্কুলে স্বাস্থ্য শিবির হয়েছে। সেখানে অনেক বিধায়ক আসছেন। আমি এলাকার বিধায়ক, সেই স্কুলের প্রাক্তনীও। যোগ্যতার দিক দিয়ে অমিত মিত্রকে বাদ দিলে, এই চত্বরে যতজন বিধায়ক আছেন আমার ধারে কাছে কেউ আছেন কি না জানি না।
আমার কোনও ক্রিমিনাল কেস নেই। অথচ তাঁরা ডাক পাচ্ছেন আর আমাকে ডাকা হচ্ছে না। কেন এরকম হয়েছে জানি না। তবে শিক্ষার মান একজন শিক্ষিত লোকই বুঝতে পারেন। বোমা তৈরিও একটা শিক্ষা। তবে, স্কুলে গিয়ে সেটা শেখানো মনে হয় না ঠিক হবে। অবশ্য সব শিক্ষাই রপ্ত করা দরকার সবার।”
এই ইংগিত কোন বিধায়কদের দিকে তা বলার অপেক্ষা রাখেনা!
এবার প্রশ্ন হচ্ছে তাহলে কি বাবার রাস্তায় হাটতে বেশি দেরি নেই ছেলের! শুভ্রাংসু কি চাইছেন দল তাকে তাড়িয়ে দিক! সময় বলবে।
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.