Header Ads

অকাট্য যুক্তিতে আরও ধারালো শিক্ষক আন্দোলন! এবার রেহাই নেই নিয়োগ না করে!

নজরবন্দি ব্যুরোঃ পঞ্চায়েত নির্বাচনের কারণে শিক্ষক পদপ্রার্থীরা কিছুদিন চুপ থাকলেও তারা যে তাদের দাবি থেকে সরে আসেননি তা ফের প্রমাণ করে দিলেন। এবার আরও বেশি শক্তিশালী আন্দোলনের মাধ্যমে অকাট্য যুক্তি সাজিয়ে নিজেদের অধিকার আদায় করে নিতে বদ্ধপরিকর এসএসসি চাকরি প্রার্থীরা।
শূন্যপদ বাড়ানো সহ উচ্চ প্রাথমিকে দ্রুত নিয়োগের দাবি জানিয়ে চরম আন্দোলনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চাকরি প্রার্থীরা। ইতিমধ্যেই উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। ভোটের কারণে সেই নিয়োগ প্রক্রিয়া কিছুটা পেছোলেও আর তা বিলম্বিত হতে দেবেন না বলে জানিয়েছেন শিক্ষক পদের দাবিদারেরা। সেই সাথে তাদের দাবি, উচ্চ প্রাথমিকে শূন্যপদের সংখ্যা বাড়াতে হবে।


নিজেদের দাবির সপক্ষে তারা যুক্তিও খাড়া করেছেন। চাকরি প্রার্থী মঞ্চের তরফে জানানো হয়েছে, দীর্ঘ ৬ বছর শিক্ষক নিয়োগ নেই রাজ্যে। প্রতি বছর প্রায় ৩ থেকে ৪ হাজার শিক্ষক অবসর গ্রহণ করছেন। ফলে শিক্ষকের প্রয়োজনীয়তা স্কুল গুলিতে ভীষনভাবে। উত্তরবঙ্গের স্কুল গুলিতে প্রশিক্ষন প্রাপ্ত শিক্ষকের সংখ্যা এতই কম যে অন্যান্য এলাকা থেকে শিক্ষক স্থানান্তরের নির্দেশ অবধি দেওয়া হয়েছে।

শুধু তাই নয়, U-DISE রিপোর্ট অনুযায়ী, গণিতে রাজ্যে ৭৮৩ জন ছাত্র প্রতি মাত্র ১ জন শিক্ষক। অন্যান্য বিষয় গুলির অবস্থাও এর চেয়ে বিশেষ ভালো নয়। এই পরিস্থিতিতে পর্যাপ্ত শিক্ষকের অভাবে বন্ধ হতে বসেছে বহু স্কুল। তাই মামলাকারী শিক্ষক পদপ্রার্থীদের জন্য ১০ শতাংশ আসন সংরক্ষিত রেখে যে বাকি ১৩ হাজার শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তা বাড়াতেই হবে।


শিক্ষক পদপ্রার্থীরা নিজেদের মধ্যে বৃহত্তর জোট গড়ে তুলেছেন। তাদের কথা অনুযায়ী, "এই সরকারকে বিশ্বাস নেই। শিক্ষকদের বেতন বাবদ সিংহভাগ টাকা কেন্দ্র থেকে পেলেও রাজকোষের ঘাটতি দেখিয়ে নিয়োগ আটকে রেখেছে সরকার। তাই যতক্ষণ না চাকরি পাচ্ছি ততক্ষণ বিশ্বাস নেই।" আর এই আতঙ্কে রাজ্য জুড়ে শিক্ষক পদপ্রার্থীরা দাবি আদায়ের আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়ার কথা জানিয়ে দিয়েছেন। চাকরি প্রার্থীদের ভাষায়, যুদ্ধের দামামা বেজে গেছে। এখন শুধুই অধিকার ছিনিয়ে নেওয়ার অপেক্ষা।

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.