Header Ads

চাকরি সংকটে রাজ্যের প্রায় সাড়ে আট হাজার শিক্ষকের। কি ভাবছে রাজ্য সরকার?

নজরবন্দি ব্যুরোঃ রাজ্যে কর্মরত শিক্ষকদের চাকরি নিয়ে এবার টানাটানি। প্রায় সাড়ে আট হাজার শিক্ষকের চাকরি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে এই মুহূর্তে। শুধু তাই নয়, ওই শিক্ষকদের ভবিষ্যৎ চরম সংকটে, একথা বলাই বাহুল্য।

এনসিটিই নিয়ম অনুযায়ী, রাজ্যের সমস্ত শিক্ষকদের উচ্চ মাধ্যমিকে ৫০ শতাংশ নম্বর থাকা বাধ্যতামূলক। যাদের এই নম্বর নেই তাদের শীঘ্রই তা অর্জন করতে হবে। এই মর্মে কর্মরত শিক্ষকদের ৫০ শতাংশ নম্বর অর্জনের একটি সুযোগ দেওয়া হয়। কিন্তু তারে ডাহা ফেল করেন অসংখ্য শিক্ষক। এর মধ্যে রয়েছেন পার্শ্বশিক্ষক, শিশু সহায়ক এবং প্রাথমিক শিক্ষকরা। যারা এই পরীক্ষায় ফেল করেছেন তাদের চাকরি যে কোনো মুহূর্তে চলে যেতে পারে। এর মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য শিশু শিক্ষা মিশনের অধিকর্তা স্বাতী বন্দ্যোপাধ্যায় রবীন্দ্র মুক্ত বিদ্যালয় সংসদের সভাপতি ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায়কে চিঠি দিয়ে অকৃতকার্য শিক্ষকদের আরও একটা সুযোগ দেওয়ার আবেদন জানান। এবিষয়ে ফাল্গুনী বাবু বলেন, তারা চিঠি পেয়েছেন।

তবে যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার নেবে শিক্ষা দপ্তরের সচিব। এদিকে শিশু সহায়ক উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ ফেল করা শিক্ষকদের জন্য আবেদন জানালেও প্রাথমিক বা পার্শ্বশিক্ষকদের জন্য কোনো আবেদন জানানোর এক্তিয়ার নেই প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের। ফলে ওইসমস্ত শিক্ষকদের ভাগ্যে কি আছে তা বলা যাচ্ছে না। এক্ষেত্রে পুরো দায়ভার দেওয়া হয়েছে শিক্ষা দপ্তরের ওপরে। শিক্ষা দপ্তর যদি আরেকবার সুযোগ দেয় তবেই চাকরি বাঁঁচবে শিক্ষকদের, পরিস্থিতি এরকমই। কিন্তু এখনো পর্যন্ত সরকার এই বিষয়ে পরিষ্কার করে কিছুই জানায়নি। আদৌ ওই ফেল করা শিক্ষকদের দ্বিতীয় সুযোগ দেওয়া হবে কিনা তা স্পষ্ট নয়। ফলে এই মুহূর্তে চরম অনিশ্চয়তায় রাজ্যের বহু কর্মরত শিক্ষকের চাকরি।

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.