নির্বাচন আসবে যাবে কিন্তু যাদের প্রাণ গেল তাদের "উন্নয়ন" কি আবার পরের জন্মে হতে চলেছে?

নজরবন্দি ব্যুরোঃ পঞ্চায়েত ভোটের উন্নয়ন যজ্ঞে এখনও পর্যন্ত নরবলি মাত্র ১২ জন। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ব্যালট বাক্স ছিনতাই, রিভলভার দেখিয়ে ছাপ্পা, বিরোধী দলের এজেন্ট কে চড়, বুথের বাইরে লেঠেল বাহিনীর পাহারা সাথে তৃণমূল নেতার নির্দেশ "কাউকে আসতে দেবেনা ভোট দিতে" আবার কোথাও জেলা পরিষদ প্রার্থী এসে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা ভোটার দের বলে দিলেন তৃণমূলকেই ভোট দেবেন, অন্ন কাউকে দিলে কোন সরকারি সাহায্য পাওয়া যাবে না! সারাদিন ধরে ঘটেছে একাধিক 'তুচ্ছ ঘটনা'।

নিয়মমাফিক পঞ্চায়েত ভোটের অশান্তি নিয়ে রাজ্য সরকারের কাছ থেকে রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছে কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।
অন্যদিকে মৃত মানুষের দেহ নিয়ে রাজনীতির নতুন মিথ তৈরি হচ্ছে বঙ্গে। দক্ষিণ দিনাজপুরের কুশমণ্ডিতে একদল বহিরাগতকে বুথে ঢোকায় বাধা দেন স্থানীয়রা। দুপক্ষের মধ্যে শুরু হয় হাতাহাতি। সেখানেই গুলি চলে। মাটিতে লুটিয়ে পড়েন বিশু। বিশু তাদের সমর্থক বলে দাবি করেছে বিজেপি-তৃণমূল দুপক্ষই!!

সিপিআইএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, "এটা গণতন্ত্রের হত্যা। রাজনৈতিক দলগুলির সঙ্গে দেখা করছে না নির্বাচন কমিশন। আমরা আন্দোলন করছি।" তিনি আরও বলেন,"সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরায় সব দেখা যাচ্ছে। সাংবাদিকদের সাহসিকতাকে কুর্নিশ করছি।"

নির্বাচন আসবে যাবে কিন্তু যাদের প্রাণ গেল তাদের "উন্নয়ন" কি আবার পরের জন্মে হতে চলেছে এটাই এখন দেখার!
DESCRIPTION OF IMAGE

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.