Header Ads

গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগের উৎসব দেখলো সন্ত্রাস অশান্তির নগ্ন চিত্র! এরই নাম নির্বিঘ্নে ভোট?

আকাশ সেনগুপ্ত, নজরবন্দিঃ পঞ্চায়েত নির্বাচনে এক তৃতীয়াংশ আসনে জয় নিশ্চিত করেও শান্তি নেই শাসকদলের। জেলায় জেলায় গোষ্ঠী কোন্দলে জর্জরিত শাসকদল। বহু জায়গায় তৃণমূল কংগ্রেসকে লড়তে হবে দলেরই সঙ্গে, নামেই তারা নির্দল। তাই ১০০ শতাংশ আসনে জয় নিশ্চিত করতে মরিয়া শাসকদল।
পশ্চিম মেদিনীপুর এর কেশপুর, গড়বেতা, পিংলা, উত্তর ২৪ পরগণার বাদুরিয়া, আমদাঙ্গা, বীরভূমে মহম্মদবাজার সহ গোটা রাজ্যে সন্ত্রাস এর নগ্ন চিত্র ফুটে উঠেছে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে। উত্তর ২৪ পরগণার বসিরহাট এর বাদুরিয়া বিধানসভা কেন্দ্রের যদুরহাটি গ্রাম পঞ্চায়েত এর ১৬টি বুথের ভোট শেষ হয়ে গেছে সকাল ১০টার মধ্যে।পুলিশ কে নিষ্ক্রিয় করে চলছে দেদার তাণ্ডব 'সশস্ত্র বাহিনীর' নেতৃত্বে।

উত্তর ২৪ পরগনা বিলকান্দা ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েতে সকালে ভোট শুরুর কিছু সময়ের মধ্যেই বুথ থেকে সিপিআইএম পার্টির এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়।
বিজেপি প্রার্থী রাজুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়।যারা বিরোধী সমর্থক তাদের বাড়ি গিয়ে বলে আসা হয়েছে, ভোট দিতে গেলে মুদিখানা থেকে পানীয় জল- সবই বন্ধ করে দেওয়া হবে। কোচবিহারের গীতলদহে ভোটকেন্দ্রে মুখে কালো কাপড় বেঁধে দুষ্কৃতিরা তুলে নিয়ে যায় ব্যালট বাক্স। ইতিমধ্যে ভাঙ্গরের বিভিন্ন বুথে চরম উত্তেজনা ছড়িয়েছে সকাল থেকে। কুলতলিতে এসইউসিআই এর আক্রমণে মৃত্যু হয়েছে এক তৃণমূল কর্মীর।

জলপাইগুঁড়ির তেঁতুলতলা স্কুলে ব্যালট বাক্স জালিয়ে দিয়েছে দুস্কৃতকারীরা। রাজ্য নির্বাচন কমিশনে সকাল থেকেই জমা পড়েছে প্রচুর অভিযোগ। এখন দেখার হাইকোর্ট এর নির্দেশে নির্বিঘ্নে ভোট করানোর যে দায়িত্ব নির্বাচন কমিশন আর রাজ্য সরকার নিয়েছেন তার শেষ কোথায় হয়!

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.