দুপুর দুটোয় কর্মসমিতির বৈঠক যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ  প্রবেশিকা বিতর্কে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অচলাবস্থা কাটেনি। উল্টে বেড়েছে জটিলতা। আন্দোলনের তীব্রতা বাড়িয়ে অনশনে বসেছে পড়ুয়ারা। এই পরিস্থিতিতে সমস্যা সমাধানে উদ্যোগী হলেন আচার্য কেশরীনাথ ত্রিপাঠী এবং উপাচার্য সুরঞ্জন দাস।

রাজ্যের অন্যতম সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। প্রবেশিকা পরীক্ষার মাধ্যমে এখানে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি নেওয়া হত এতকাল। এবছর শিক্ষামন্ত্রী ঘোষনা করেন, যাদবপুরে প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়া হবে না আর। উচ্চমাধ্যমিকে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে ভর্তি নেওয়া হবে। এই ঘোষনার পরেই বেঁকে বসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠরত পড়ুয়ারা। শিক্ষার মানের দিক থেকে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় অন্যবদ্য। প্রবেশিকা বাতিল করলে সেই মানের অবনমন ঘটবে, দাবি  বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের। প্রবেশিকা বাতিলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে অনশনে বসেন তারা। সেই অনশন ৮৪ ঘন্টা অতিক্রম করেছে।

ইতিমধ্যেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে একজন অনশনরত পড়ুয়াকে। আজ সকালে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন আরও দুজন। পড়ুয়াদের স্বাস্থ্যের প্রতি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন আচার্য কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। তাঁর পরামর্শে আজ দুপুর দুটোয় কর্মসমিতির বৈঠক ডাকেন উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। এই মুহূর্তে প্রশ্ন একটাই, যাদবপুরের অচলাবস্থা কেটে কবে স্বাভাবিক হবে পঠনপাঠন?
Bengali Movie Air Hostess

DESCRIPTION OF IMAGE
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.