Header Ads

ঋতব্রত-র সৌজন্যে জীবনের সবথেকে বড় লড়াইতে অক্সিজেন প্রাপ্তি ছায়া আর অঙ্কনার। #Exclusive

নজরবন্দি ব্যুরোঃ সাধারণ মানুষের বিপদে তাদের পাশে দাঁড়াতে নিজের সর্বশক্তি দিয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়ের চারিত্রিক বৈশিষ্ট। সেই চেনা 'ঘরের' মানুষটিকে আরও একবার খুঁজে পেল ক্যান্সার আক্রান্ত অঙ্কনা দাসশর্মা। আলিপুরদুয়ার জেলার ফালাকাটা বীরপাড়া তাসাটি চা বাগানে বসবাসকারী অঙ্কনা ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে টাটা মেডিক্যাল সেন্টারে চিকিৎসাধীন। চিকিৎসার বিপুল আর্থিক খরচ বহন করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে অঙ্কনার বাবা অনুপম দাসশর্মার পক্ষে। সেই সময় সিপিআইএম-এর উত্তরবঙ্গের কয়েকজন ছাত্রযুব কর্মী বিষয়টি সাংসদ ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়ের কানে তোলেন। অঙ্কনার অসুস্থতার কথা জানতে পারা মাত্রই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন ঋতব্রত। সাংসদের আবেদন ভিত্তিক পিএমএনআরএফ তহবিল থেকে তিন লক্ষ টাকা মঞ্জুর করা হয়েছে ১৫ বছরের অঙ্কনার চিকিৎসার জন্য। বিষয়টি অঙ্কনার বাবা অনুপম বাবুকে নিজে ফোন করে জানিয়েছেন ঋতব্রত। অঙ্কনার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন তিনি। প্রসঙ্গত, ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় বর্তমানে সিপিআইএম দলে নেই। কিন্তু তারপরেও সিপিআইএম-এর অনুরোধে রাজনৈতিক বিরোধীতাকে দূরে সরিয়ে সাহায্যে এগিয়ে আসেন। এখানেই তিনি রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের উর্ধ্বে উঠে প্রকৃত মনুষ্যত্বের পরিচয় বহন করেন, এখানেই তাঁর চারিত্রিক সাফল্য!

অন্যদিকে একই ভাবে উপকৃত হলেন হুগলীর কোন্নগরের বাসিন্দা ছায়া গুপ্ত পাল। কয়েক মাস আগে ছায়া দেবীর ক্যানসার হয়েছে বলে জানতে পারেন তার বাড়ির লোক, টাটা ক্যানসার হাসপাতাল(রাজারহাট) থেকে ছায়ার বাড়ির লোকজন অবগত হন চিকিৎসার জন্যে দরকার প্রায় ৬ লক্ষ টাকা! চিকিৎসার এই বিপুল খরচ শুনে কার্যত ভেঙে পড়েন ছায়া দেবীর স্বামী শঙ্কর গুপ্ত। এখানেও ত্রাতা রূপে অবতীর্ণ হন সাংসদ ঋতব্রত ব্যানার্জী। ছায়ার জন্যেও সাংসদের আবেদন ভিত্তিক পিএমএনআরএফ তহবিল থেকে তিন লক্ষ টাকা মঞ্জুর করা হয়েছে।
Loading...
DESCRIPTION OF IMAGE
Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.