Header Ads

এবার মুখ্যমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীর কাছে 'চিঠি প্রেরণ" কর্মসূচী নিল রাজ্যের টেটপাশ পার্শ্বশিক্ষকেরা। #NajarbandiExclusive

নজরবন্দি ব্যুরোঃ পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উচ্চ প্রাথমিক টেট পাশ উচ্চ প্রাথমিক পর্যায়ের পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকারা রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ও মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর কাছে "চিঠি প্রেরণ" কর্মসূচীর সিদ্ধান্ত নিল। তাদের এই "চিঠি প্রেরণ" কর্মসূচী চলবে আগামী ১৯ই আগস্ট থেকে ২৫ই আগস্ট পর্যন্ত।

রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ও মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর কাছে চিঠির মাধ্যমে রাজ্যের সকল উচ্চ প্রাথমিক টেটপাশ উচ্চ প্রাথমিক পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের সহকারী শিক্ষক হিসেবে নিযুক্ত করনের বিনম্র অনুরোধ জানাতে চলেছে তারা। রাজ্য সরকার ইতিমধ্যেই উচ্চ প্রাথমিক পার্শ্বশিক্ষকদের জন্যে স্কুল সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে উচ্চ প্রাথমিকে ১০ শতাংশ সংরক্ষণের ব্যবস্থা করেছেন। কিন্তু, রাজ্যের কিছু সংখ্যক এম এস কে শিক্ষক ও শিক্ষিকা সেই ১০ শতাংশ সংরক্ষণের মধ্যে তাদেরকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য মহামান্য হাইকোর্টে একটি মামলা দায়ের করেছে। সেই মামলার চূড়ান্ত শুনানি এখনঅব্দি হয়নি। অন্যদিকে, রাজ্যের শিক্ষক নিয়োগ সংস্থা "পশ্চিমবঙ্গ স্কুল সার্ভিস কমিশন" উচ্চ প্রাথমিকে প্রদত্ত ১০ শতাংশ রেখে বাকি ৯০ শতাংশের উপর ভেরিফিকেশনের জন্য প্রথম ফেজের লিস্ট প্রকাশ করেছেন। এতে রাজ্যের উচ্চ প্রাথমিক টেট পাশ উচ্চ প্রাথমিক পর্যায়ের পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকারা হতাশার দিন গুনছেন। 

উচ্চ প্রাথমিক টেটপাশ উচ্চ প্রাথমিক পর্যায়ের পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের প্রতিনিধি মিনারুল ইসলাম, সুমনা পাল, বিবেক ঘোষ আমজাদ হোসেন, রহমত মন্ডল বলেন, আমরা রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ও মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর কাছে "চিঠি প্রেরণ" কর্মসূচীর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এই  কর্মসূচীর মাধ্যমে আমরা মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ও মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর নিকট এই বিনম্র অনুরোধ রাখতে চলেছি যে আমাদেরকে সহকারী শিক্ষক ও শিক্ষিকাতে রুপান্তরিত করনের তাঁরা যেন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করেন। আমাদের এই "চিঠি প্রেরণ" কর্মসূচী আগামী ১৯ই আগস্ট থেকে শুরু হয়ে আগামী ২৫ই আগস্ট পর্যন্ত চলবে। আমরা প্রত্যেকে ইন্ডিভিজুয়ালী একটি করে চিঠি মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ও মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর কাছে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এই "চিঠি প্রেরণ" কর্মসূচীতে আমরা যে চিঠি পাঠাচ্ছি তাতে সকলের চিঠির বয়ান তথা বিষয়বস্তু একই থাকছে। রাজ্যের সকল প্রান্তের আপার প্রাইমারি টেট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ আপার প্রাইমারি পার্শ্ব শিক্ষকরা আমাদের যে স্যোসাল মিডিয়ার গ্রুপগুলি যেমন হোয়াটস্ অ্যাপ, ফেসবুক, টেলিগ্রাম সেই গ্রুপগুলিতে যে ঘোষণা আমরা করেছি সেখানে চিঠির পিডিএফ পাবেন। সেই পিডিএফ প্রিন্ট করে নিজের  তথ্য ফাঁকা স্থানে পূরণ করে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ও মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর নির্দিষ্ট ঠিকানায় স্পিড পোস্ট/রেজিস্টারড পোস্ট কিংবা বিশ্বস্থ কোন ক্যুরিয়্যার সার্ভিসের মাধ্যমে পাঠাতে পারবেন। সেই চিঠিতে আমরা সকলের নিজের নাম, স্কুলের নাম, শিক্ষাগত যোগ্যতা, প্রশিক্ষণের যোগ্যতা, যে বিষয়ে স্কুল সার্ভিস কমিশনে অ্যাপ্লাই করেছি সেই বিষয়ের নাম, ব্লকের নাম ও জেলার নাম উল্লেখ করছি। 

তারা আরও বলেন, মহামান্য রাজ্য সরকার উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের ১০ শতাংশ সংরক্ষণ দেওয়ার সিদ্ধান্তে আমরা পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ। আমরা ভেবেছিলাম স্কুল সার্ভিস কমিশনের চলতি শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে অনেক  সহকারী শিক্ষকের মর্যাদায় উন্নিত হব। কিন্তু, পার্শ্বশিক্ষকদের ১০ শতাংশ সংরক্ষণে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার জন্য  রাজ্যের কিছু এম এস কে শিক্ষক মহামান্য হাইকোর্টে মামলা দায়ের করে। সেই মামলার নিষ্পত্তি এখনো সম্পূর্ণ হয় নি এমনকি কবে সম্পুর্ন হবে তা নিয়ে হতাশার মধ্যে রয়েছি আমরা। তাছাড়া, আমরা যারা উচ্চ প্রাথমিক টেট পাশ করে বসে আছি তাদের মধ্যে কিছু সংখ্যকের বি. এড  যোগ্যতাও আছে এবং পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক স্কুল সংসদের পরিচালনায় দূরশিক্ষার মাধ্যমে সকল পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের ডি. এল. এড ডিগ্রীও সমাপ্তির মুখে। উচ্চ প্রাথমিক পর্যায়ের স্কুলে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের যে ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা ও ন্যূনতম প্রশিক্ষণ দরকার তা আমাদের কিছু সংখ্যকের ইতিমধ্যে সম্পূর্ণ এবং বাকিদের সম্পূর্ণের দোরগোড়ায়। 

তারা আরও যোগ করেন, এমতাবস্তায় আমরা উচ্চ প্রাথমিক টেটপাশ উচ্চ প্রাথমিক পর্যায়ের পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকারা মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ও মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর কাছে "চিঠি প্রেরণ" কর্মসূচীর মাধ্যমে আমাদের সকলকে সহকারী শিক্ষক ও শিক্ষিকার মর্যাদা দেওয়ার জন্য বিনম্র অনুরোধ জানাচ্ছি। আমাদের সকলের বিশ্বাস আমাদের এই কাতর অনুরোধের মধ্যে দিয়ে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ও মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী আমাদেরকে সহকারী শিক্ষক ও শিক্ষিকার মর্যাদা দেওয়ার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।
কিভাবে পাঠাবেন চিঠি?

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.