Header Ads

‘আমাদের ছাড়া কাউকে বিশ্বাস করবেন না;' বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নজরবন্দি ব্যুরো: ‘আমাদের ছাড়া কাউকে বিশ্বাস করবেন না’। ‘জঙ্গল-মহল আমার প্রিয়, প্লিজ হারাতে দেবেন না’। ঝাড়গ্রাম-জঙ্গল-মহলে গেরুয়া গ্রাস থেকে তৃণমূলের জমি বাঁচাতে বৃহস্পতিবার ঠিক এই ভাবেই জনগণের উদ্দেশ্যে বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তৃণমূলের আর এক হেভি-ওয়েট নেতা ও পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে পাশে নিয়ে জঙ্গল-মহলের বিভিন্ন রুটের জন্য একাধিক বাস পরিষেবা শুরু করার কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।এর পরে ঝাড়গ্রামে নতুন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিলান্যাসও করেন মুখ্যমন্ত্রী নিজে। সেই সঙ্গে বলেন, “ এই জঙ্গল-মহলের জন্য অনেক কিছু করেছি আমি, আরও অনেক কিছু করার ইচ্ছা রয়েছে। আগের ঋণের জন্য বহু টাকা সুদ দিতে হয়, নইলে এখানে সোনা ফলিয়ে দিতাম!”
বাংলায় ক্ষমতায় আসার আগে থেকে জঙ্গল-মহলে রাজনৈতিক আধিপত্য প্রভাব বাড়াতে থাকে তৃণমূল। রাজ্যের ক্ষমতাতে আসার পর ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পুরুলিয়ায় পরিকাঠামো ঢেলে সাজিয়েছেন তিনি। কিন্তু সম্প্রতি পঞ্চায়েত ভোটে দেখা গিয়েছে, ঝাড়গ্রামে তৃণমূলের ফলাফল খুব একটা ভাল নয় । একই ভাবে জঙ্গল-মহলের বহু এলাকায় কোথাও তৃণমূলের জমি কেড়ে নিয়েছে বিজেপি তো কোথাও নির্দল। শাসক দলের ময়নাতদন্তে বেরিয়ে এসেছে, স্থানীয় মানুষের সঙ্গে তৃণমূল দূরত্ব বেড়ে যাবার কথা। তৃণমূল-নেত্রীও বুঝতে পেরেছেন নিচুতলার নেতাদের দুর্নীতি, বিলাসবহুল জীবনযাপন এবং গোষ্ঠী কোন্দলই এই সমস্যার মূল কারণ। তা ছাড়া দলীয় স্তরে নির্বাচনী পর্যালোচনার রিপোর্টে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য, মানুষের জন্য গ্রহণ করা একাধিক সরকারি প্রকল্পের টাকা চলে গিয়েছে স্থানীয় নেতাদের পকেটে। আর তাই সেই ভাঙা সংগঠন মেরামত করার জন্যে ঝাড়গ্রামের দায়িত্ব নিজের হাতে তুলে নেন মুখ্যমন্ত্রী।

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.