Header Ads

ATAL BIHARI VAJPAYEE

চমকে সবাই তাকিয়ে দেখে শিক্ষক বিদ্রোহ!

মানস গোস্বামীঃ গতকাল অর্থাৎ ৭ই আগস্ট, রাজধানী কলকাতার অবস্থা খানিকটা এমনই হয়েছিল। যখন মহানগরীর রাজপথে পদধ্বনীর সঙ্গে গর্জিত হয় হাজার চল্লিশেক প্রাথমিক শিক্ষকের দৃপ্ত কন্ঠ।উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারী টিচার্স এসোসিয়েশনের উদ্যোগে গতকাল রাজপথে নেমেছিল হাজার চল্লিশেক, লালবাজার এর হিসেব মোতাবেক, প্রাথমিক শিক্ষক সর্বভারতীয় PRT স্কেলের দাবীতে।
সকাল এগারোটায় শান্তিপূর্ণ সুশৃঙ্খল মিছিল শুরু হয় সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার থেকে। যা এসে শেষ হয় রানী রাসমণি এভেনিউ তে দুপুর বারোটার সময়। সেখানেই শুরু হয় শিক্ষক সমাবেশ। মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন কবি মন্দাক্রান্তা সেন, প্রাক্তন উপাচার্য আনন্দদেব মুখোপাধ্যায়, সিদ্ধার্থ দত্ত, অশোকনাথ বসু সহ শিক্ষাজগতের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। PRT স্কেলের দাবীতে সমর্থন জানানোর জন্য ডাকা হয়েছিল পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত শিক্ষক সংগঠন গুলিকে। ডান বাম নির্বিশেষে, বিজেপি শিক্ষক সংগঠন সহ ছয়টি শিক্ষক সংগঠনের শীর্ষ নেতৃত্ব। যারা মঞ্চ থেকে UUPTWA এর সর্বতভাবে পাশে থাকার বার্তা দেন। অনুপস্থিত ছিল শুধুমাত্র শাসকদল ঘনিষ্ঠ শিক্ষক সংগঠনগুলি। তবে বিভিন্ন জেলা থেকে এসেছিলেন সেই সব অনুপস্থিত সংগঠনের জেলা ও চক্র নেতৃত্ববৃন্দ।

 দুপুর ২টো নাগাদ নবান্ন থেকে ডেকে পাঠানো হলে চারজনের প্রতিনিধি দল গিয়ে প্রায় লাখ খানেক স্বাক্ষর সম্বলিত স্মারকলিপি জমা করে আসেন মুখ্যমন্ত্রী দফতরের জয়েন্ট সেক্রেটারি মহাশয়ের কাছে। সেক্রেটারি সাহেবের সঙ্গে আলোচনার সময় উঠে আসে নবান্ন এর তরফে প্রাথমিক শিক্ষকদের বঞ্চনার অবগতি এর কথা। উনি বলেন, "প্রাথমিক শিক্ষকদের বঞ্চনা ও UUPTWA এর মুভমেন্ট সম্পর্কে নবান্ন অবগত আছে এবং এ নিয়ে আলোচনাও চলছে। খুব তাড়াতাড়ি আপনাদের জন্য ভালো খবর অপেক্ষা করছে।"এরপর প্রতিনিধি দল রওনা হয় বিধানসভার উদ্যেশ্যে। বিধানসভা মুলতুবি হওয়ার কারণে সরকার পক্ষের কেউ উপস্থিত ছিলেন না তবে মাননীয় আব্দুল মান্নান, সুজন চক্রবর্তী মহাশয়কে সমস্ত রকমের নথিপত্র দিয়ে আসা হয়।
 মাননীয় দিলীপ ঘোষ মহাশয় অনুপস্থিত ছিলেন ঠিকই কিন্তু তার পরামর্শ মতন তার কাছেও সমস্ত নথিপত্র পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়। তারা সকলেই সবরকম সহায়তা করার প্রতিশ্রুতি দেন। সমাবেশে সহায়তার জন্য সাহায্য চাইলে অল্প সময়ের মধ্যেই শিক্ষকদের কাছ থেকে সাহায্যস্বরূপ উঠে আসে ₹১০২২৩৫/-। এরপর বিকেল ৩টের সময় সমাবেশের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়। সকলে একরাশ আশা নিয়ে ফিরে যান যার যার গন্তব্যস্থলে। UUPTWA এর সম্পাদিকা মাননীয়া পৃথা বিশ্বাস কৃতজ্ঞতা স্বীকার করে সকল শিক্ষক, শিক্ষাজগতের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, সমস্ত শিক্ষক সংগঠন কে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন দার্জিলিং থেকে সুন্দরবন, মুর্শিদাবাদ থেকে জঙ্গলমহল প্রমান করে দিয়েছে যে রাজনীতির ঊর্ধে গিয়েও প্রাথমিক শিক্ষকরা একজোট হতে পারেন নিজেদের ন্যায্য অধিকার আদায়ের জন্য। তিনি তাদেরও ধন্যবাদ জানাতে ভোলেননি যারা বিদ্যালয় যাতে বন্ধ না থাকে সেইজন্য সভায় অনুপস্থিত ছিলেন।

কিন্তু দুঃখের বিষয় হল এটাই যে পশ্চিমবঙ্গের তথাকথিত প্রথম সারির মিডিয়াগুলো মিছিলে, সভায় উপস্থিত থাকলেও তাদের ক্ষুদ্র স্বার্থ চরিতার্থের জন্য হয় সংবাদ প্রকাশ করেন নি অথবা বিকৃত করে সংবাদ উপস্থাপন করেছেন। অথচ সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম গুলি সঠিক খবর প্রকাশ করতে পিছু হটেন নি।

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.