Header Ads

শিক্ষাঙ্গনে দুষ্কৃতি হামলা ও শিক্ষক নিগ্রহের প্রতিবাদে সুর চড়ালেন শিক্ষকরা।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ তৃণমূল সরকারের জামানায় শিক্ষক নিগ্রহ নতুন কোনও ঘটনা নয়। বর্ধমান জেলার রায়না শ্যামসুন্দর কলেজের ইতিহাসের অধ্যাপক মিলন-বাবুকে ডিপার্টমেন্টের মধ্যে TMCP-র ছাত্রনেতারা বেধড়ক পেটান বলে অভিযোগ ওঠে। কিছুদিন আগে রাজাবাজার সায়েন্স কলেজের অধ্যাপক ভাস্কর-বাবুকে ছাত্র নেতা চড় মারেন বলেও অভিযোগ ওঠে।

এর পরেও ওই ছাত্রনেতাকে পুলিশ জামিনের সুবিধা করে দেন। সম্প্রতি নামখানা থানা এলাকায় চঞ্চলাময়ি হাই স্কুলের তৃণমূল নেতা-কর্মীদের হাতে আক্রান্ত হল বেশ কয়েকজন শিক্ষক৷
তাই এই সব অন্যায় এর বিরুদ্ধে শিক্ষক সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ গড়ায় আহ্বান করেছিল  'শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ'।

 শিক্ষাঙ্গনে তৃনমূলের বহিরাগত দুষ্কৃতি দ্বারা হামলার প্রতিবাদে, দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে ও শিক্ষাঙ্গনে সুস্থ পরিবেশ ফিরিয়ে আনার উদ্দেশ্যে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, স্বনামধন্য আইনজীবী, চিত্র পরিচালক ও জাতীয় পুরষ্কারপ্রাপ্ত কবিদের উপস্থিতিতে সকল শিক্ষক সংগঠনের সহয়োগিতায় "শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ" ও স্থানীয় অভিভাবক ও নাগরিকবৃন্দের উদ্যোগে আজ নামখানার টেকারবাজারে দুপুর ২টায় এক "প্রতিবাদ সভা"-র আয়োজিত হয়। সমাজের বিভিন্ন স্তরের গুনিজন এবং শিক্ষকরা ঐ সভায় বক্তব্য রাখেন।

উপস্থিত ছিলেন,
১. অধ্যাপক অম্বিকেশ মহাপাত্র (যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়)।
২. অধ্যাপক হরপ্রসাদ সমাদ্দার (প্রাক্তন সভাপতি, পশ্চিমবঙ্গ মধ্য শিক্ষা পর্ষদ)।
৩. কবি মন্দাক্রান্তা সেন (জাতীয় পুরষ্কার প্রাপ্ত)।
৪. অরুণাভ গাঙ্গুলি (চিত্র পরিচালক)।
৫. অধ্যাপক ভাস্করচন্দ্র দাস (রাজাবাজার সায়েন্স কলেজ, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়)।
৬. অধ্যাপক অমিত রায় (ঘাটাল রবীন্দ্র শতবার্ষিকী মহাবিদ্যালয়)।
৭. জয়ন্তনারায়ণ চ্যাটার্জী (আইনজীবী, কলকাতা হাইকোর্ট)।
৮. শীর্ষেন্দু সিংহ রায় (আইনজীবী, কলকাতা হাইকোর্ট)।
৯. প্রতিবাদী শিক্ষক প্রদীপ মুখার্জী (কামদুনী)।
Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.