Header Ads

স্থায়ীকরণের দাবি নিয়ে তিলোত্তমার বুকে আন্দোলনে নামছেন রাজ্যের আপার প্রাইমারি টেটপাশ পার্শ্বশিক্ষকরা।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ রাজ্যের আপার প্রাইমারি টেটপাশ পার্শ্বশিক্ষকরা তাদের দাবি নিয়ে স্কুল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যানের কাছে আগামী ৩রা অক্টোবর, ২০১৮ তারিখে একটি শান্তিপূর্ণ ডেপুটেশন দেওয়ার কর্মসূচি নিয়েছেন। কোলকাতার বুকে শুধুমাত্র আপার টেটপাশ পার্শ্বশিক্ষকদের কোনো কর্মসূচি এই প্রথম। এর আগে তারা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীর কাছে "চিঠি প্রেরণ" কর্মসূচি নিয়েছিলেন।
বর্তমানে মানসিক হতাশার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন তারা। তাদের মানসিক হতাশার কারণ হলো রাজ্য সরকার স্কুল সার্ভিসে তাদের যে ১০ শতাংশ সংরক্ষণ দিয়েছেন তার উপর শিক্ষাবন্ধু ও এম. এস. কে. শিক্ষকদের করা মামলা। কিছু সংখ্যক শিক্ষাবন্ধু ও এম. এস. কে. শিক্ষক উক্ত ১০ শতাংশ সংরক্ষণের মধ্যে আসার জন্য হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন। সেই মামলার নিষ্পত্তি এখনও হয় নি। উক্ত মামলার নিষ্পত্তি না হওয়ায় রাজ্যের শিক্ষক নিয়োগ সংস্থা পশ্চিমবঙ্গ স্কুল সার্ভিস কমিশন চলতি আপার প্রাইমারি নিয়োগে ৯০ শতাংশের উপর প্রথম ফেজের ভেরিফিকেশনের তালিকা ইতিমধ্যেই প্রকাশ করে দিয়েছেন।
 যদিও গত ২৫ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ তারিখে ফ্রেসার চাকরি প্রার্থীদের ডেপুটেশনে স্কুল সার্ভিস কমিশনের তরফে একটি আশার বাণী জানতে পারা গেছে যে দ্বিতীয় ফেজের ভেরিফিকেশনের তালিকায় পার্শ্বশিক্ষকদের তালিকাও প্রকাশ হতে পারে। আপার প্রাইমারি টেটপাশ আপার প্রাইমারি পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকা কর্মীবৃন্দের প্রতিনিধি সুমনা পাল, শ্রীমন্ত পাল ও মিনারুল ইসলাম বলেন, আমরা আগামী ৩রা অক্টোবর, ২০১৮ তারিখে স্কুল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যানের কাছে আমাদের দাবি নিয়ে একটি শান্তিপূর্ণ ডেপুটেশন দিতে চলেছি। রাজ্যের বিভিন্ন জেলার সমস্ত টেটপাশ পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের ওই দিন সকাল ঠিক ১১টায় কোলকাতার ময়ূখভবনে জমায়েত হবার আহ্বানও জানান তারা। ওই দিন আমরা ময়ূখভবন থেকে পায়ে হেঁটে মিছিল করে আচার্য সদনে পৌঁছে চেয়ারম্যানের কাছে আমাদের দাবিপত্র পেশ করব।
 তাঁরা আরো বলেন, আমাদের মূল দাবি আপার প্রাইমারি টেটপাশ সমস্ত আপার প্রাইমারি পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের স্থায়ী শিক্ষক ও শিক্ষিকা হিসেবে নিয়োগ করার। রাজ্য সরকার ১০ শতাংশ সংরক্ষণের ব্যবস্থা তো আগেই করেছিলেন। গত ৯ই জুলাই, ২০১৮ তারিখে কোলকাতার ইন্ডোরের সভায় রাজ্যের মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী আমাদের ৩০ শতাংশ সংরক্ষণের কথা বলেছেন। তাছাড়া আমাদের কিছু সংখ্যকের বি. এড. ডিগ্রী আগেই ছিল এবং সকলের ডি. এল. এড. ডিগ্রীর ফাইনাল রেজাল্ট আসার অপেক্ষা। তাই সকলের স্থায়ী করনের দাবিটি আমরা সামনে রাখছি। এই দাবি ছাড়াও আমাদের আরো কিছু দাবি আমরা সেই দিন রাখব। তাঁরা আরো জানান, এর আগে আমরা রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ও মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর কাছে "চিঠি প্রেরণ" কর্মসূচি নিয়েছিলাম গতমাসে।

 আর আগামী ৩রা অক্টোবর কোলকাতাতে আমাদের কর্মসূচি এই প্রথম। এই ডেপুটেশন কর্মসূচিতে চেয়ারম্যানের মাধ্যমে রাজ্য সরকারের কাছে আমাদের দাবিপত্র পৌঁছে দেওয়ার একটা প্রচেষ্টা আমরা করছি। এই কর্মসূচি কোন পার্শ্বশিক্ষক সংগঠনভিত্তিক নয়। টেটপাশ পার্শ্ব শিক্ষক ও শিক্ষিকা কর্মীবৃন্দের নিজেদের উদ্যোগে এই কর্মসূচি।
Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.