'বেতন বৈষম্যে বড় জয়'। স্নাতক শিক্ষক-শিক্ষিকাদের দাবীকে মান্যতা দিল হাইকোর্ট!

নজরবন্দি ব্যুরোঃ গতকাল (28.11.2018) কলকাতা হাইকোর্টে জাস্টিস শেখর ববি শরাফের বেঞ্চে পশ্চিমবঙ্গের  গভর্মেন্ট স্পনসর্ড ও অ্যাডেড স্কুলে কর্মরত পাস গ্র‍্যাজুয়েট ক‍্যাটেগরী শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য সংক্রান্ত মামলাটি উঠে। সরকারী উকীল বিষয়টি pay Commissionএর কাছে পাঠিয়ে দেবার কথা বলেন।
শিক্ষক দের পক্ষে Adv. আমজাদ আলী ও Adv. প্রতীক ধর এর তীব্র বিরোধিতা করে বলেন এই শিক্ষক গন দু-দশকের বেশি সময় ধরে বৈআইনি ভাবে আর্থিক বৈষম্য ও বঞ্চনার শিকার যার সম্পূর্ন দায় শিক্ষা দপ্তর ও অর্থ দপ্তরের। তাই তারা আগে এবিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ নিক। সরকারের পক্ষ থেকে তীব্র বিরোধিতা করে বলা হয় Pay Commission বসে গেছে তাই এখন finance department এর কোনো এক্তিয়ার নেই।
শিক্ষক দের তরফে আইনজীবীরা বলেন যে Pay Commission এর  কখনোই ROPA ২০০৯ এ হওয়া বৈষম্য দূর করার এক্তিয়ার নেই। এই শুনে মাননীয় বিচারপতি সরকার পক্ষের দাবি খারিজ করে দেন। উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে মাননীয় বিচারপতি রায় দেন যে finance department এর প্রতিনিধি, School Education Department এর প্রতিনিধি এবং বেতন কমিশনের প্রতিনিধি নিয়ে এক যৌথ কমিটি গঠন করতে হবে এবং শিক্ষকদের দাবি দাওয়া খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব‍্যবস্থা নিতে হবে।
 রাজ্য সম্পাদক সৌরেন ভট্টাচার্য জানিয়েছেন "Its a great leap forward . এই রায়ে আমাদের দাবি আরও শক্ত ভূমিতে প্রতিষ্ঠিত হলো। এরপর বৈষম্য দূর না হলে আমরা প্রয়োজনে division bench এ জোরালো সওয়াল করতে পারবো। এছাড়া আর কিছু দিনের মধ্যেই উঠতে চলেছে আমাদের Career Advancement Scheme সংক্রান্ত মামলা টি যাতে আমরা 01.01.2006 থেকে CAS facility দাবি করেছি। Graduate Category শিক্ষক দের স্বার্থে BGTA লড়ছে লড়বে।" 
DESCRIPTION OF IMAGE
Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.