Header Ads

najarbandi alok somman 2018

আমার স্বামী অন্যায়ের প্রতিবাদ করতেই নবান্নের সামনে গায়ে আগুন দিয়েছেন: অগ্নিদগ্ধ যুবকের স্ত্রী।

নজরবন্দি ব্যুরো: শুক্রবার নবান্নের সামনেই নিরাপত্তা রক্ষীদের চোখ এড়িয়ে গায়ে আগুন দিয়ে ছিলেন এক যুবক। ওই অগ্নিদগ্ধ যুবকের মৃত্যু হল। ওই যুবক সালকিয়ার বাসিন্দা বাপন সাহা(৪১)। ওই দিনই রাতে এসএসকেএমে তাঁর মৃত্যু হয়।
এই যুবক কেন গায়ে আগুন দিলেন তা নিয়ে কেউ মুখ খুলতে চায়নি।
তবে শনিবার বাপনবাবুর মৃত্যুর ঘটনায় জড়িত এক স্থানীয় প্রোমোটারের অবিলম্বে কঠোর শাস্তির দাবি তোলেন তারি এক প্রতিবেশী। তবে এই ঘটনার পর থেকে ওই প্রোমোটারের খোঁজ পাওয়া যায়নি। এলাকাবাসীদের এক অংশের অভিযোগ, বাপনবাবুর সালকিয়ার ৪৫ নম্বর ত্রিপুরা লেনে বাড়ির ঢোকার মুখেই সাত তলা ফ্ল্যাট বানাচ্ছিলেন ওই প্রোমোটার। এর ফলে তাঁর ঘরে ঢোকা বেরোনোর সমস্যা হচ্ছিল। এর প্রতিবাদ করায় প্রোমোটারের পাঠানো একদল যুবকের হাতে বৃহস্পতিবার চরম হেনস্থা হতে হয় তাঁকে। এই ঘটনার পরেই ওই দিন সকলের চোখের সামনে আত্মহত্যার চেষ্টা করে ওই যুবক কিন্তু এলাকার লোকেরা তাঁকে ধরে ফেলায় সে যাত্রায় বেঁচে যান।
এর পরের দিন শুক্রবার তাঁকে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় নবান্নের সামনে থেকে উদ্ধার করা হয়। বাড়িতে বাপনবাবুর দশ মাসের একটি শিশুপুত্র রয়েছে। তাঁর স্ত্রী শর্মিষ্ঠা সাহা এক সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, ‘‘ওই দিন যে ভাবে প্রোমোটারের লোকজন ওঁকে মারধর করল, আমাকে ঠেলে ফেলে দিল, আমার শাশুড়ির নামে গালিগালাজ করল তা উনি সহ্য করতে পারেননি। চাকরি না পাওয়ার জন্য মানসিক যন্ত্রণায় আমার স্বামী আত্মহত্যা করার চেষ্টার করেছেন এই অভিযোগ মিথ্যা। আমার স্বামী অন্যায়ের প্রতিবাদ করতেই নবান্নের সামনে গায়ে আগুন দিয়েছিলেন।’’
Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.