Header Ads

আদালতের রায় মানতে বাধ্য নন কমিশনের চেয়ার ম্যান! আদালতে হাজির হবার নির্দেশ।

নজরবন্দি ব্যুরো: 'আদালতের নির্দেশ আমি মানতে বাধ্য নই'। হবু শিক্ষকদের কাছে এমন মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান আবদুর রউফ। অভিযোগ আদালতের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও ইংরাজি বিষয়ে মহিলা ক্যাটাগরিতে ২ জন চাকরি প্রার্থীর কাউন্সেলিং করাতে রাজি নন তিনি। কেন তিনি আদালতের নির্দেশ মানতে চান না তার ব্যাখ্যা দেবার নির্দেশ দিল আদালত। ১২ সপ্তাহ পরে আদালতে হাজির হবার নির্দেশ দিয়েছে বিচারপতি প্রতীক প্রকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়।
ওর ওই দিন তাঁকে জানাতে হবে কেন তিনি আদালতের নির্দেশ মানতে চান না।
ষষ্ঠ এসএলএসটি নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ইংরাজি বিষয়ে মহিলা ক্যাটাগরিতে ওয়েটিং লিস্টে নাম রয়েছে দুই চাকরি প্রার্থীর। দুই জনেই মুর্শিদাবাদ জেলার বাসিন্দা। রাজ্যে মাদ্রাসা গুলিতে ইংরাজি বিষয়ে একাধিক শূন্য পদ থাকা সত্ত্বেও কাউন্সেলিং-এ ডাকা হচ্ছে না তাঁদের। এই অভিযোগ নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয় ওই দুই চাকরি প্রার্থী। আদালত এদের কাউন্সেলিং করার নির্দেশ দেয়। সেই মতো আদালতের রায় উল্লেখ করে আইনজীবীর চিঠি নিয়ে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যানের কাছে যান ওই দুই চাকরি প্রার্থী। তখন তৃতীয় দফার কাউন্সেলিং চলছিল। অভিযোগ আদালতের রায় মানেন নি মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান। আরও অভিযোগ আইনজীবীর চিঠি গ্রহণ করেন নি তিনি। উল্টে তাদের অপমান করা হয় । এর পর তদের কে বলা হয় আদালতের রায় মানতে তিনি বাধ্য নয়! এর পরে তাঁর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের হয় বলে জানা গিয়েছে। 
Theme images by sndr. Powered by Blogger.