Header Ads

রাত পোহালেই শাস্তির খাঁড়া নেমে আসতে পারে কুণাল ঘোষের ওপর, হতে পারে কারাদণ্ড!!

নজরবন্দি ব্যুরোঃ শাস্তির মুখে পড়তে পারেন প্রাক্তন তৃণমূলের সাংসদ তথা সাংবাদিক কুণাল ঘোষ। হতে পারে এক বছরের জেল! কিন্তু আবার কেন? প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন কুণাল নিজেই। নিজের শাস্তির আশঙ্কা করে ফেসবুক ওয়ালে পোষ্ট করেছেন কুণাল ঘোষ। পাশাপাশি জনসাধারন এবং নিজের পাঠকদের কাছে জানিয়েছেন গুরুত্বপূর্ণ আবেদন।
এক ঝলকে দেখে নিন কি লিখেছেন কুণাল ঘোষ।

আত্মহত্যার চেষ্টার মামলায় দোষ স্বীকার করব কাল, শাস্তি ঘোষণাও করবে কোর্ট। আমার বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্সি জেলের মধ্যে আত্মহত্যার চেষ্টার একটি মামলা চলছে। কলকাতা পুলিশ ও রাজ্য সরকারের মামলা। পক্ষপাতদুষ্ট তদন্ত ও অন্যায় অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে এই পথে গেছিলাম। ব্যাঙ্কশাল কোর্ট হয়ে মামলাটি এখন বারাসাতে এমপি, এমএলএদের জন্য গঠিত বিশেষ আদালতে বিচারক সোমনাথ চক্রবর্তীর এজলাসে। বুধবার মাননীয় বিচারকের কাছে আমি এই মামলায় দোষ স্বীকার করে নেওয়ার ( গিলটি প্লিড) অনুমতি চেয়েছি। আদালত অনুমতি দিয়েছেন। আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল এগারোটায় কোর্টে 'গিলটি প্লিড' করব। বিচারক শাস্তিও জানাবেন। আইনজীবী অয়ন চক্রবর্তী জানাল ভারতীয় দন্ডবিধিতে এর একাধিক ধরণের শাস্তির বিধান আছে। সর্বোচ্চ শাস্তি এক বছরের কারাদন্ড।
জানি না আমার জন্য কী অপেক্ষা করছে। সংসদে এই 309 ধারাটির বিলুপ্তিপ্রস্তাব গৃহীত হলেও আইন হিসেবে কার্যকর না হওয়ায় বিচার হবেই। আমি যেহেতু নিজে এই আত্মহত্যার চেষ্টার বাধ্যতামূলক পরিস্থিতিতে পড়ে গেছিলাম, তাই আমিই "গিলটি প্লিড" করে এটা শেষ করব। এটা আমার লড়াই ছিল। আর আমার কারণে এই ঘটনায় জেল সুপার, চিকিৎসক, সাধারণ সিপাইদের শাস্তির মুখে পড়তে হয়েছিল। তখনও আমি সরকারকে লিখিতভাবে বলেছিলাম ওঁদের কোনো দোষ নেই। এই মামলা আমি টানতে শুরু করলে এ ধরণের নির্দোষ কয়েকজনকে কিছু হয়রানিতে পড়তে হত। আমি তা চাই না। আমার লড়াই, আমার প্রতিবাদ, আমি আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলাম। জেলেরই দু একজন না থাকলে আমি বেঁচে থাকতাম কিনা জানি না। তাই কাল বৃহস্পতিবার "গিলটি প্লিড" করে এই মামলা শেষ করব। একটা কথা। গিলটি প্লিড মানে আমি বলব যে আমিই আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলাম। জেলের কোনো কর্মীর দোষ নেই। আমি একবারও বলব না যে আত্মহত্যার চেষ্টা করে আমি ভুল করেছিলাম। শুধু ঘটনাটি স্বীকার করব আমি। আপনার এবং আপনাদের সকলের শুভেচ্ছা চাই ; যেন মনের জোর অটুট রেখে চলতে পারি।

No comments

Theme images by sndr. Powered by Blogger.