Header Ads

বনধ কে নির্বিষ করতে সব ব্যবস্থা করবে রাজ্য প্রশাসন! গেরিলা কায়দায় অবরোধ গড়তে প্রস্তুত বাম নেতৃত্ব।

নজরবন্দি ব্যুরো: চলতি মাসের ৮ ও ৯ তারিখ ১০ টি শ্রমিক-কর্মচারী সংগঠন গোটা দেশ জুড়ে একাধিক দাবিতে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। আর ওই ধর্মঘটের অঙ্গ হিসাবে ওই দিন পশ্চিমবঙ্গ অচল করার ডাক দিয়েছে বাম নেতৃত্ব। ওই একই দিনে রাজ্য সচল রাখার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এর ফলে রাজ্যে বনধ সমর্থক এবং বনধ বিরোধীদের মধ্যে দাঁড়িয়ে রাজ্য প্রশাসন। আর কিভাবে এই বনধ মোকাবিলা করবে এটা ভেবে হিমশিম খাচ্ছে প্রশাসনের কর্তারা।

আলিমুদ্দিন থেকে পাওয়া খবর অনুসারে, এবারের এই বনধ অন্য বারের বনধের থেকে একটু আলাদা হবে।
আর এই বনধে যদি রাজ্য প্রশাসন বা তৃণমূলের ক্যাডার বাধা দেবার চেষ্টা করে তাহলে সামনাসামনি লড়াই বাধবে। আর সিপি(আই)এম যে ছেড়ে কথা বলবে না তা বোঝা গিয়েছে সিপি(আই)এম এর রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রের বক্তব্য থেকে। তিনি জানিয়েছেন, “কেন্দ্রের জন-বিরোধী নীতির বিরুদ্ধে ১২ দফা দাবিতে সাধারণ ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে। এর সঙ্গে রাজ্য সরকারের কোনও সম্পর্ক নেই। তা হলে কেন, রাজ্য সরকারে এই ধর্মঘট ব্যর্থ করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তবে যাই করা হোক, যদি জোর করে ধর্মঘট ভাঙার চেষ্টা করা হয়, তাহলে সারা রাজ্যে জুড়ে প্রতিবাদ হবে”।

আর একটি সূত্র থেকে পাওয়া খবর অনুসারে, সিপি(আই)এম এর উচ্চ নেতৃত্ব ধর্মঘট সমর্থকদের জন্য গেরিলা কায়দায় অবরোধ, মিছিল, বিক্ষোভ দেখানো নির্দেশ দিয়েছে। পাশাপাশি পুলিশ বাধা দিলে বেশ কয়েকটি জায়গায় সরাসরি সংঘর্ষে যেতেও পিছপা হবেন না তাঁরা।

তবে এই সবকিছু জানে রাজ্য প্রশাসন। তাই প্রশাসনের পাশাপাশি তৈরি থাকবে রাজ্যের শাসক দলের ক্যাডার বাহিনী।
তৃণমূলের প্রথম লক্ষ্য যে করেই হোক লোকসভার আগে বামেদের ডাকা এই বনধ যেন এই রাজ্যে সফল না হয়। আর এই বনধ কে কার্যত নির্বিষ করতে সব ব্যবস্থা করবে বর্তমান রাজ্য সরকার। এমনটাই মনে করেন রাজনৈতিক বোদ্ধারা।

DESCRIPTION OF IMAGE

No comments

Theme images by sndr. Powered by Blogger.