শুধু প্রভাবশালী নয়, সাধারণ মানুষকেও লুঠ করার বৈধ পরিচয়পত্র দিতে হবে। #Editorial

অর্ক সানা, সম্পাদক(নজরবন্দি): লেখার আগে প্রশ্নটা মাথায় আসে আমরা যাব কোথায়? সবাই কি চোর, লুটেরা? উল্লেখ্য শনিবার সকাল ১০টায় কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার কে সারদা তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার স্বার্থে জেরা করবে সিবিআই। তাঁর বিরুদ্ধে সারদা কাণ্ডের গুরুত্বপূর্ন নথি লোপাটের অভিযোগ এনেছে সিবিআই। একাধিক বার ডাকার পর রাজীব কুমার সিবিআই-এর সামনে উপস্থিত না হওয়ায় গত রবিবার রাতে রাজীবের বাড়িতেই জেরা করতে যায় সিবিআই। বাকি কান্ড সবার জানা। ধর্না থেকে নৈতিক জয়ের নাটক দেখে বাঙালি আড়মোড়া ভেঙেছে সবে তারপরেই শুরু হল নতুন নাটক! সিবিআই রাজীব কুমার কে জেরা করার আগেই কলকাতা পুলিশের ৩০ জনের বাহিনী হানা দিল সিবিআই কর্তা নাগেশ্বর রাওয়ের স্ত্রীর সঙ্গে সংযুক্ত কলকাতার একটি নন ব্যাঙ্কিং আর্থিক সংস্থার কলকাতা এবং সল্টলেকের অফিসে! কেন? বউবাজার থানায় ওই সংস্থার বিরুদ্ধে বেআইনি আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ জমা পড়েছে! আর সেকারণেই পুলিশি অভিযান। পুলিশ সূত্রে খবর শুধু নাগেশ্বরের স্ত্রী ননজড়িত নাগেশ্বর রাওয়ের মেয়েও। ওই কোম্পানি থেকে সিবিআই কর্তার মেয়ে নিয়মিত বেতন পেতেন। বাকি আর কিছু খোলসা করেনি পুলিশ।
মূল কথাটা হল তুমি আমার পেছনে লাগলে আমিও তোমার পেছনে লাগব। আমাদের মত সাধারনের সমস্যাটা হল যাদের ওপর ভরসা করে রাতে নিশ্চিন্তে ঘুমাব তাঁরাই কেউ সন্দেহের উর্দ্ধে নয়। চিটফান্ডের টাকা যেভাবে লুট হয়েছে  সবাই জানে অথচ কেউ জানে না। ব্যাপারটা অনেকটা সেই আতঙ্ক চলচ্চিত্রের মত, "মাষ্টারমশাই আপনি কিছু দেখেন নি"। ঘোষণা করে দিলেই তো হয় তদন্ত বন্ধ! এমনিতেই লুট হয়েছে তাঁর ওপর তদন্তের নামে-মামলা, পাল্টা মামলার নামে বছরের পর বছর সুদ হিসেবে জনগনের করের টাকা নষ্ট হচ্ছে!
নিতান্ত সাধারণ করদাতা হিসেবে তথা সংবিধানের We The People of India-র একজন People হয়ে জানতে চাই সংবিধান তো ভারতের প্রত্যেক নাগরিক কে সমান অধিকার দিয়েছে, সেটা কি শুধুই খাতা কলমে? মাননীয় প্রধানমন্ত্রী-মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী অর্থাৎ মোদী-দিদি দুজনের কাছেই আবেদন সাধারণ মানুষকেও চুরি-লুট-তোলাবাজির সমান অধিকার দেওয়া হোক। আর এই গয়েন্দা সংস্থা, পুলিশ এইসব রেখে লাভ নেই। কি হবে? কেউ আইন মানে?  প্রভাব-টাকা-লোভ কাউকে আইন মানতে দেয়?
সুন্দরী মহিলা দেখলে জড়িয়ে ধরতে ইচ্ছে করে, কিন্তু আমরা ধরিনা কেন? কারন আমরা সভ্য। কেউ খারাপ ব্যাবহার করলে মনে হয় মাথাটা মেরে ফাটিয়ে দিই, আমরা পারিনা কেন? কারন আমরা সভ্য। নো-রিফিউজাল ট্যাক্সি ৫ কিলোমিটার যেতে ৩০০ টাকা ভাড়া চায়  দিতে না রাজি হলে গন্তব্যে যেতে অস্বীকার করে যখন তখন মনে হয় ট্যাক্সিতে একটা ইট ছুঁড়ে মেরে কাঁচ ভেঙে দিই! কিন্তু আমরা তা করি না কেন? কারন আমরা সভ্য।
বর্তমানে আমরা সভ্যতা হারিয়েছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী-মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী। তাই আমাদের অসভ্য হওয়ার স্বীকৃতি দিন। চুরি-তোলাবাজি-লুঠ করার বৈধ পরিচয় পত্র দিন।
Bengali Movie Air Hostess

DESCRIPTION OF IMAGE
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.