চরম প্রতিহিংসার নিদর্শন? প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে তৃণমূলের এফআইআর! কারন? পড়ুন

নজরবন্দি ব্যুরোঃ কোন পথে রাজ্য? কোন পথে দেশ! এবার প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে জলপাইগুড়ির কোতোয়ালি থানায় এফআইআর করল তৃণমূল! উল্লেখ্য, শুক্রবার জলপাইগুড়ি সার্কিট বেঞ্চের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পাশাপাশি ফালাকাটা-সলসলাবাড়ি ৪ লেনের জাতীয় সড়ক উদ্বোধন করেন তিনি। তৃণমূলের অভিযোগ ৪ লেনের এই জাতীয় সড়কের উদ্বোধনেই বিনা অনুমতিতে নাম ব্যাবহার করা হয়েছে তাঁদের সাংসদ বিধায়কদের তাই তারা অপমানিত হয়েছেন এবং তাঁর প্রতিবাদেই প্রধানমন্ত্রী সহ জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন তাঁরা!
এসজেডিএ চেয়ারম্যান সৌরভ চক্রবর্তী জানিয়েছেন তৃণমূল কে অপমান করতেই ইচ্ছাকৃত ভাবে এই কাণ্ড ঘটানো হয়েছে! এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জলপাইগুড়ি সফরের পর যুব তৃণমূলের পক্ষ থেকে শুদ্ধিকরণ কর্মসূচি পালন করে গঙ্গাজল ছিটানো হয়।
প্রশ্ন উঠছে প্রধানমন্ত্রী তথা দেশের যে কোন সাংসদ-বিধায়ক জনগনের প্রতি দায়বদ্ধ যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয়। বিধায়ক-সাংসদ কোন পদই কারও পৈতৃক সম্পত্তি নয়। সবাই নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। সেখানে জনকল্যাণমূলক কোন প্রকল্পের উদ্বোধন যখন দেশের প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং করছেন তখন যে এলাকায় প্রকল্প রূপায়িত হচ্ছে সেখানকার জনপ্রতিনিধিদের নাম প্রকল্প উদ্বোধনের বিজ্ঞাপনে দেওয়াটাই প্রথা। ওয়াকিবহাল মহলের মত, জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ বা প্রধানমন্ত্রী দলের উর্দ্ধে উঠে চরম বিরোধী তৃণমূল বিধায়ক বা সাংসদদের নাম বিজ্ঞাপনে রেখেছেন। রাজ্যে একটা চিত্র তো প্রথায় পরিণত হয়েছে বিরোধীদের অবহেলা এবং উদ্বোধন অনুষ্ঠানে না ডাকা সেখানে কেন্দের এই পদক্ষেপ প্রশংসার দাবি রাখে। 
DESCRIPTION OF IMAGE
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.