শিক্ষকদের দায়ের করা মামলায় প্রবল চাপে রাজ্য সরকার, হলফনামা পেশের নির্দেশ।

নজরবন্দি ব্যুরো: সোমবার  রাজ্যের সরকারি স্পনসরড ও এইডেড স্কুলের শিক্ষক দের CAS ফেসিলিটির দাবিতে বৃহত্তর গ্র্যাজুয়েট টিচার্স এসোসিয়েশনের সদস্যদের করা মামলাটি আদালতে উঠলে সরকারি আইনজীবী বলেন এরা সরকারি স্কুলের শিক্ষক নন। এই সমস্ত শিক্ষকরা PSC নয় SSC এর মাধ্যমে নিযুক্ত হয়েছেন।বেতন কাঠামো পূনর্বিন্যাসের দাবিতে কারিগরি ভবনের সামনে রাতভোর ধর্নায় শিক্ষক-রা। #Exclusive শিক্ষক দের তরফের আইনজীবী সর্দার আমজাদ আলী ও অনিন্দ্য বসু সরকারি আইনজীবীর তীব্র প্রতিবাদ করে বলেন জাতীয় শিক্ষা নীতি থেকে শুরু করে NCTE আইন কোথাও এই ধরনের বৈষম্যের কথা উল্লেখ করা হয় নি।
আর সুপ্রিম কোর্টের এ বিষয়ে স্পষ্ট  রায় রয়েছে যে নিয়োগের ধরন বৈষম্যের কারণ হতে পারে না। তাহলে একই যোগ্যতায় একই কাজ করা সত্ত্বেও কেন এরা বৈষম্যের শিকার হবেন বছরের পর বছর? সরকারি আইনজীবী কোনও সদুত্তর না দিতে পারায় মহামান্য বিচারপতি নির্দেশ দেন সরকারকে ৪ সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা দিয়ে জানাতে হবে কেন এই শিক্ষকরা কেরিয়ার এডভান্সমেন্ট স্কিমের সুবিধা পাবেন না।
মামলাকারী শিক্ষকদের হয়ে বৃহত্তর গ্র্যাজুয়েট টিচার্স এসোসিয়েশন'এর রাজ্য সম্পাদক শ্রী সৌরেন ভট্টাচার্য বলেন, "কোর্টের সিদ্ধান্তে আমরা আমাদের দাবীর স্বপক্ষে আরও কিছুটা এগিয়ে গেলাম। আমরা আশাবাদী যে পশ্চিম বঙ্গের গভর্নমেন্ট স্পনসরড় ও এইডেড স্কুলের গ্র্যাজুয়েট,অনার্স ও পিজি স্তরের সমস্ত ধরনের  শিক্ষকদের দীর্ঘদিনের বঞ্চনার  বৈষম্যের অবসান ঘটবে।"

Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.