রিল নন রিয়েল লাইফের হিরো বিকাশরঞ্জনের জন্য যাদবপুরে ভোট চাইছে বামফ্রন্ট৷

নজরবন্দি ব্যুরোঃ কোনও সন্দেহ নেই বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য যাদবপুরে বাম প্রার্থী হওয়ায় খুশীর ঝিলিক বাম কর্মী,সমর্থক থেকে আবালবৃদ্ধ বনিতার মুখে৷সবার মুখে একটিই কথা তৃণমূলের মিমি চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যকে প্রার্থী করা বামেদের বড় মাষ্টারস্ট্রোক৷ আসলে যেমন মহম্মদ সেলিম,তেমন বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য এই মানুষগুলির জনপ্রিয়তা প্রশ্নাতীত,কেবল বাম সমর্থকরা নন শিক্ষিত,চেতনাবান, মানুষদের পছন্দের তালিকায় শীর্ষে আছেন এই দুই মানুষ৷

শাসক তৃণমূলের আমলে ঘটা চিটফান্ড কান্ড কেলেঙ্কারি বাংলার রাজনীতিতে স্বাধীনতার পর সব থেকে বড় আর্থিক কেলেঙ্কারি বলেই মনে করেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা৷বিপুল সংখ্যক আমানতকারী সর্বশান্ত হয়েছিলেন,বিপুল সংখ্যক মানুষ সব হারিয়ে কার্যত রাতারাতি নিঃস্ব হয়েছেন,চোখের জলই ছিল তাদের একমাত্র সম্বল৷প্রতারিত মানুষগুলো চেয়েছিলেন নিরপেক্ষ তদন্ত সংস্থার মাধ্যমে সঠিক তদন্ত হোক,দোষীরা গ্রেফতার হন,আমানতকারীরা তাদের সারাজীবনের সঞ্চিত অর্থ ফিরে পাক৷মানুষের সেই দাবি নিয়ে বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য দেশের শীর্ষ আদালত থেকে জয়যুক্ত হয়েই ফিরেছিলেন৷সুপ্রীম কোর্ট আদেশ দিয়েছিল চিটফান্ড কেলেঙ্কারির তদন্ত করবে সিবিআই৷কোনও সন্দেহ নেই সুপ্রীম কোর্টে সেই ঐতিহাসিক জয় বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যকে কার্যত আবালবৃদ্ধ বনিতার কাছে রিলের নয় রিয়েল লাইফের হিরো করে তুলেছে৷

দুঁদে এই আইনজীবি আজও রাজ্যের সাধারন মানুষের চোখে হিরোরই মর্যাদা পান৷দুঃস্থ মানুষকে আইনি সহায়তা থেকে প্রতিবাদ যেখানে প্রয়োজন সেখানেই আইনি যুদ্ধে নিজের দক্ষতা দেখিয়ে বারবার তিনি জয়ের হাসি হেসেছেন, মুখের হাসি ফুটিয়েছেন সেইসব মানুষদের মুখে যারা ক্ষুদ্র সামর্থ নিয়ে ন্যায় বিচারের দাবিতে সরকারের কাছে বারবার আবেদন-নিবেদন করেও সরকারের সাড়া পান নি৷আসলে বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য যেন মানুষের কাছে প্রতিবাদের মূর্ত প্রতীক,মুশকিল আসান,রিয়েল লাইফের রিয়েল হিরো৷কোনও সন্দেহ নেই বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যকে যাদবপুরে বামেদের প্রার্থী হিসেবে পেয়ে খুশীর আবহ সমাজের সব স্তরের মানুষের হৃদয়ে৷বাম সমর্থক নন এমন মানুষেরা মুক্ত কন্ঠে বলছেন বিকাশবাবুর মত মানুষকেই সাংসদ হিসেবে দেখতে চাই যিনি রাজ্যের সাধারন মানুষের প্রতিনিধিত্ব করবেন,যার কন্ঠস্বর জোরালো হবে সংসদে,যার বক্তব্যে,প্রতিবাদে ধ্বনিত হব সংসদ,যার তীক্ষ্ণ যুক্তি আর ক্ষুরধার বক্তব্যে প্রতিষ্ঠিত হবে মানুষের জয়৷

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন সারদাকান্ডে সব থেকে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলেন দক্ষিন ২৪পরগনার মানুষ৷তাৎপর্যের বিষয় যাদবপুর লোকসভার বিপুল অংশ দক্ষিন ২৪পরগনা জেলার অন্তর্গত৷বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য চিটফান্ডে সর্বস্ব হারানো মানুষদের জন্য সুপ্রীম কোর্ট থেকে আদায় করেছিলেন সিবিআই তদন্তের শিলমোহর৷জীবনের শেষ সম্বল হারানো এই মানুষগুলির চোখে রিয়েল লাইফের রিয়েল হিরো কলকাতার প্রাক্তন মেয়র তথা আইনজীবি বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য৷তাদের বিশ্বাস দুঁদে আইনজীবি বিকাশবাবু সাংসদ হিসেবে সংসদে যেতে পারলে চিটফান্ড তদন্ত আরও গতি পাবে,মানুষ প্রকৃত বিচার পাবেন,অপরাধীদের শাস্তি হবে,আমানতকারীরা তাদের টাকা ফিরে পাবেন৷হয়ত সেই কারনেই বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যের নাম যাদবপুরের প্রার্থী তালিকায় দেখেই আবেগে,উচ্ছাসে ফেটে পড়েছেন বাম,কর্মী সমর্থকরা৷হয়ত তারা চাইছিলেন তৃণমূলের চিত্রতারকার বিরুদ্ধে এমন কোনও মানুষ প্রার্থী হন যিনি যতেষ্ট হেভিওয়েট হবেন৷


বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যের মত কলকাতার প্রাক্তন মেয়র,তথা দুঁদে আইনজীবিকে প্রার্থী হিসেবে পেয়েই জয়ের গন্ধ পাচ্ছেন বাম কর্মী,সমর্থক থেকে তৃণমূল-বিজেপি বিরোধী মানুষেরা৷শুরু হয়েছে প্রচার৷বামেদের এক কর্মীর সরস মন্তব্য গ্যামারের ছটা নয়,মানুষের জন্য লড়াই করা মানুষটির জন্য আমরা ভোট চাইব সমাজের সব মানুষের কাছে,ভোট চাইব বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যের জন্য, যিনি রিল নন রিয়েল লাইফের হিরো৷
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.