নীরবে আদি বিজেপি নেতারা ভিড় জমাচ্ছেন তৃণমূলে, সামনের বিধানসভা নির্বাচন সহজ হবে না গেরুয়া শিবিরের কাছে।

নজরবন্দি ব্যুরো: এবারের লোকসভা নির্বাচনে পরাজয়ের মুখ দেখেছে তৃণমূল। আর এর পর থেকে তৃণমূল ভেঙে একাধিক নেতা যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে। এই চিত্র দেখে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একটা বড় অংশের ধারণা, এবার তৃণমূল শেষ হতে চলেছে। বাস্তব চিত্র কিন্তু একটু অন্য কথা বলছে। যা কিন্তু ভাল খবর নয় বিজেপির কাছে।

প্রবাদ আছে, নদীর এক কূল ভাঙে আর এক কূল গড়ে। যত তৃণমূল ভেঙে নেতারা বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন, বিজেপির আদি নেতা-নেত্রীরা যারা এতদিন বুক চিতিয়ে আদর্শকে বুকে নিয়ে বিজেপি করতেন তারা এবার দল ছাড়ছেন নীরবে।
তাঁরা আবার ভিড়ছেন ঘাস-ফুলের দিকে। তেমনই নীরবেই বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন বারাকপুরের বিজেপি নেতা সুবোধ অধিকারী। কাঁচরাপাড়ায় মমতার সভায় তৃণমূলে যোগ দিয়ে তিনি বিজেপিকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন।

শুধু বিজেপিই নয়, সুবোধ অধিকারীর নিশানা থেকে বাদ গেলেন না অর্জুন সিং-মুকুল রায় সহ বঙ্গের বেশকিছু বিজেপি নেতা। তাঁর সাফ কথা, আমার সঙ্গে তৃণমূলের কোনওদিন কোনও শত্রুতা ছিল না। তখন অর্জুন সিংয়ের মতো লোক তৃণমূলে ছিল। আর বিজেপিতে ছিল নিয়ম-নীতি-আদর্শ। এখন সব ভুলে গিয়ে পরিবারতন্ত্র কায়েম করছে করতে চাইছে বিজেপি।

একজন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েই সাংসদ হয়েছেন। তা তিনি হতেই পারেন।
কিন্তু তাঁর ছেলে বিধায়ক, আবার পরিবারের একজন চেয়ারম্যান, একজন কাউন্সিলর। এটা একটা দলের বৈশিষ্ট্য হতে পারেনা। আদতেই একটা সিন্ডিকেটের দল হয়ে গিয়েছে বিজেপি। তাই ওই দল ত্যাগ করলাম।

এর পরে তিনি বলেন অর্জুন সিং এর মতন নেতারা বেরিয়ে গিয়ে তৃণমূল এখন পবিত্র হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে এইভাবে যদি নীরবে আদি বিজেপি সমর্থক বা নেতারা দল ছাড়তে থাকেন তাহলে সামনের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির স্বপ্ন যে স্বপ্নই থেকে যাবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.