খুনিদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে আরামবাগ অচল করার হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু!

নজরবন্দি ব্যুরো: লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে অশান্তির ঘটনা ঘটেই চলেছে। আক্রান্ত হয়েছেন  শাসক-বিরোধী উভয় দলের প্রতিনিধিরা। এবার আরামবাগের গোঘাটের কোটা এলাকায় দলীয় কর্মী কাশীনাথ ঘোষের মৃত্যুর ঘটনায় প্রশাসনের বিরুদ্ধে চরম হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। তৃণমূলের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়ে সায়ন্তন বসু জানালেন, পুলিশকে ৭২ ঘণ্টা সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে।
তার মধ্যে খুনিদের না ধরতে পারলে আরামবাগ অচল করে দেওয়া হবে।

রবিবার ঘটনাস্থলে যান সায়ন্তন বসু। খুনের ঘটনায় কাঠগড়ায় তোলেন শাসকদলকে। পুলিশ ও প্রশাসনের তীব্র নিন্দা করে বলেন, "নৈরাজ্যের প্রশাসন চলছে। পঞ্চায়েত ভোটের পর থেকে আমাদের ৮২ জন কর্মী খুন হয়েছেন। অথচ প্রশাসন কোনও পদক্ষেপ নিচ্ছে না। আমি শুনেছি, কাশীনাথকে ফোনে হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। তৃণমূলে যোগ দিতে চাপ দেওয়া হচ্ছিল। উনি যোগ দেননি। তাই ওকে খুন করা হয়েছে।
ওঁর ফোনের কল রেকর্ড থেকে সব জানা যাবে।"

প্রসঙ্গত, এলাকার তৃণমূলের নেতা খুনে নাম জড়িয়ে ছিল তাঁর। ফেরার ছিলেন অনেক দিন। সেই বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ উদ্ধার হল গ্রামের পাশের এক খাল থেকে। ওই মৃত ব্যক্তির নাম কাশীনাথ ঘোষ। বিজেপির অভিযোগ, এই খুনের ঘটনার সঙ্গে তৃণমূল যুক্ত। যদিও এই অভিযোগ পুরোটাই অস্বীকার করেছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। আজ সকালে খালে কাশীনাথ ঘোষের দেহ ভাসতে দেখেন এলাকার লোকজন। পরে পুলিশ এসে ওই দেহ উদ্ধার করে আরামবাগ মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে ময়নাতদন্ত হবে বলে জানা গিয়েছে। 
DESCRIPTION OF IMAGE
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.