কড়ায় গন্ডায় অধিকার বুঝে নেওয়ার অঙ্গীকার, UUPTWA-র দাবিকে পূর্ন সমর্থন BGTA-র!

নজরবন্দি ব্যুরোঃ একে তো ধর্না মঞ্চ অনশনে রূপান্তরিত, তার ওপর এক বঞ্চিত কে সমর্থন জানিয়ে অনশন মঞ্চে আর এক বঞ্চিতের সর্বান্তকরণে সমর্থন প্রাথমিক শিক্ষকদের পিআরটি দাবীর আন্দোলনকে এক অন্য মাত্রা এনে দিলো।দীর্ঘ দিন ধরে এই রাজ্যে প্রাইমারি শিক্ষক দের অরাজনৈতিক সংগঠন উস্থি, ও গ্র‍্যাজুয়েট টিচার্স দের অরাজনৈতিক সংগঠন বৃহত্তর গ্র‍্যাজুয়েট টিচার্স এসোসিয়েশান (বিজিটিএ)তাদের বেতন বঞ্চনা নিয়ে আলাদা আলাদা ভাবে যে তীব্র আন্দোলন করে আসছিল, তা আজ প্রাইমারি শিক্ষক দের অনশন মঞ্চে মিলেমিশে একাকার হয়ে গেলো।
বিজিটিএ এর প্রায় ৪০ জনের এক প্রতিনিধি দল আজ বিকেলে প্রাথমিক শিক্ষক দের এই বঞ্চনার বিরুদ্ধে আন্দোলন কে সমর্থনই শুধু জানিয়ে এলেন তাই নয়, তাঁরা ঘোষণা করলেন দুই সংগঠন যৌথভাবে আন্দোলন করে তাদের দাবী কড়ায় গন্ডায় বুঝে নেবেন। বিজিটিএ এর যুগ্ম কোষাধ্যক্ষ স্বপন কুমার মন্ডল বলেন,"আজ আমরা এসে ফিরে যাচ্ছি ঠিকই,তবে এরপরে যেদিন আসবো সেদিন প্রাইমারি ও গ্র‍্যাজুয়েট টিচার্স দের ন্যায্য দাবী আদায় করেই ফিরব।" উপস্থিত রাজ্য সভাপতি বলেন,"সরকারের উচিৎ অনশন যাতে বেশিদিন না গড়ায় তার ব্যাবস্থা করা ও দ্রুত সমস্যা মেটানো।"
উস্থির রাজ্য সম্পাদিকা পৃথা বিশ্বাস বলেন,"বিজিটিএ বরাবরই আমাদের সঙ্গে ছিলো। আর আজ এই চরম সন্ধিক্ষণে যখন অন্য সমস্ত শিক্ষক সংগঠন রাজনীতির অংক কষতে ব্যাস্ত,তখন বিজিটিএ এর এই সমর্থন আমাদের সবাইকে মানসিকভাবে অনেক লড়াই এর রসদ জুগিয়ে দিলো। ওনাদের ধন্যবাদ দিয়ে ছোট করবো না।" এই প্রসঙ্গে বিজিটিএ এর রাজ্য সম্পাদক সৌরেন ভট্টাচার্য বলেন,"সরকারের কাছে আমরাও আজ অনশন মঞ্চ থেকে এই বার্তা পাঠাচ্ছি যে, পিজিটি ও টিজিটি স্কেল এর পার্থক্য কেন্দ্রের সপ্তম বেতন কমিশন অনুযায়ী যদি ২৭০০ টাকার এক পয়সাও বেশি হয়,তাহলে এই মাসের শেষ থেকে সরকারের ঘুম কেড়ে নিতে, সারা রাজ্য থেকে বিজিটিয়ান রা কলকাতার রাজপথ স্তব্ধ করে দিতে সবরকমভাবেই প্রস্তুত।সরকার যেন এই ভুল না ভাবেন যে,আমরা জীবন গড়ার কারিগর বলে,জ্বলে উঠতে পারবো না।"

Loading...
অনশনরত প্রাথমিক শিক্ষকরা।
DESCRIPTION OF IMAGE
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.