রেল লাইনে দেহ মিলল সেন্ট জেভিয়ার্সের ছাত্র ঋষিকের। মৃত্যু নিয়ে ধন্দে পুলিশ।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ হুগলির সিঙ্গুরের বাসিন্দা কলকাতার সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজের পদার্থবিদ্যার প্রথম বর্ষের ছাত্র ঋষিক কোলের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় ক্রমশ দানা বাঁধছে সন্দেহ। সত্যিই কি ইংরেজিতে কথা বলতে না পারার কারণে আত্মহত্যা করেছে ঋষিক? নাকি এর পিছনে অন্য কোনও 'ঘটনা' লুকিয়ে আছে? বেলুড় জিআরপি জানিয়েছে, উত্তরপাড়া ও হিন্দ মোটর স্টেশনের মাঝামাঝি অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবকের দেহ পাওয়া গিয়েছিল। মাথা ও ধড় পড়ে ছিল আলাদা ভাবে।
 শুক্রবার সন্ধ্যায় হৃষীকের পরিবারের লোকজন দেহটি শনাক্ত করেছেন। তাঁর বাবার বক্তব্য, ছেলে শহুরে আদবকায়দা এবং ইংরেজি ভাল না-জানায় ক্লাসে মানিয়ে নিতে পারছিলেন না। তাই কিছুটা অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলেন।একথা বিশ্বাস করতে পারছেন না পরিবারের কেউ। সেন্ট জেভিয়ার্সের মতো প্রতিষ্ঠানের সংস্কৃতিই আলাদা। সেখানে ইংরেজিতে কথা বলার চল। ক্লাসের বাইরে সহপাঠীদের সঙ্গে গল্পগুজবের ক্ষেত্রেও মাতৃভাষা নয় কথা হয় ইংরেজিতে।
কিন্তু যে উচ্চমাধ্যমিকে ইংরাজিতে ৮৪ পেয়েছে সে যে ইংরাজি ভীতির কারণে নিজেকে শেষ করে দিয়েছে, একথা অবিশ্বাস্য ঠেকছে ঋষিকের স্কুলের শিক্ষকদের কাছেও। প্রিয় ছাত্রের এই পরিণতিতে শোক তো বটেই, বিস্ময়ও ঘিরে ধরেছে তাঁদের। একটা প্রশ্নেরই উত্তর খুঁজছেন সকলে। কেন এমনটা করল ঋষিক?
Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.