কাশ্মীরের রাষ্ট্রদূতঃইমরান খান


নজরবন্দি ব্যুরোঃ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান নিজেকে 'কাশ্মীরের রাষ্ট্রদূত' হিসেবে আন্তজার্তিক মঞ্চে প্রতিষ্ঠার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। নিউইয়র্কে শুক্রবার রাষ্ট্রপুঞ্জের ৭৪ তম বার্ষিক সাধারণ সভায় পাক প্রধানমন্ত্রী ভারতের জম্মু কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা এবং ৩৫ (এ) ধারা বিলোপের তীব্র ভাষায় সমালোচনা করেছেন।
সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'আমাদের কাছে দুটো বিকল্প পথ খোলা আছে। প্রথমত আত্মসমর্পণ, দ্বিতীয়ত যুদ্ধ। আমরা আমাদের লড়াই চালিয়ে যাবো।' কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা রদের প্রসঙ্গে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, '৮ মিলিয়ন কাশ্মীরি আজ হাজতে। আপনি কি মনে করেন না যে ১৮০ মিলিয়ন মুসলিম ভারতের মানসিকতার সঙ্গে একমত হয়ে থাকবে। আর কাশ্মীরি মুসলমানদের সঙ্গে যা হচ্ছে তা শুধু দেখে যাবে ১.৩ মুসলিমরা।'
স্বভাবতই পাক প্রধানমন্ত্রীর রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ সভায় এই বক্তব্য উপমহাদেশের স্থিতাবস্থায় অশনি সংকেত। ইতিমধ্যেই ভারতের সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত জানিয়েছেন, ৫০০ জঙ্গি সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশের চেষ্টায় রয়েছে। চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় সি আর পি এফের কনভয়ে জঙ্গি হামলার পর থেকেই পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের উত্তেজনা চরমে। বালাকোটের এয়ার স্ট্রাইক পাক প্রশাসনের মুখের ওপরে ভারতের কড়া জবাব। বালাকোট এয়ার স্ট্রাই্কে পাক মাটিতে ভারতীয় বিমানবাহিনীর পাইলট অভিনন্দন বর্তমান পাক সেনাদের হাতে আটক হয়েছিল। এই প্রসঙ্গে নিয়ে ইমরান সাধারণ সভায় বলেন, ' আমরা কুলভূষণ যাদবকে গ্রেফতার করেছি। অভিযুক্ত পাক মাটিতে সন্ত্রাস ছড়ানোর অভিযোগ কবুল করেছে। কিন্তু এরপরেও আমরা শান্তির বাতাবরণকে কায়েম রাখার জন্য ভারতীয় পাইলটকে মুক্তি দিয়েছিলাম।'
সব মিলিয়ে উপত্যকার বিশেষ মর্যাদা বিলোপ পাকিস্তানের সামরিক এবং কূটনৈতিক কৌশলে বড়সড় ধাক্কা তা পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বক্তব্যে স্পষ্ট।

Loading...

No comments

Theme images by caracterdesign. Powered by Blogger.